ঢাকা ০৮:৩৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ১২ জুন ২০২৪, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মেসিকে ছাড়াই কোপার পরিকল্পনা আর্জেন্টিনার

  • Reporter Name
  • আপডেট টাইম : ০৪:৩০:২১ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ অক্টোবর ২০১৮
  • ২৯৪ বার

হাওর বার্তা ডেস্কঃ বিশ্বকাপ ব্যর্থতার পর আর্জেন্টিনা জাতীয় দল থেকে ‘সাময়িক অবসর’ নিয়েছেন লিওনেল মেসি। বিশ্রামের নাম করে নেওয়া এই স্বেচ্ছা অবসর থেকে কবে ফিরবেন তারও কোনো ইঙ্গিত নেই। স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন উঠছে, তবে কি আর জাতীয় দলে ফিরবেন না মেসি? এই প্রশ্নের উত্তর দেবে সময়।

তবে আর্জেন্টাইন ফুটবল ফেঢারেশনের (এএফএ) হাবভাবে স্পষ্ট, মেসিকে ছাড়াই আসন্ন কোপা আমেরিকার প্রস্তুতি-পরিকল্পনা করছে তারা! শুধু মেসি নয়, অন্য যে সিনিয়ররা আপাতত দলের বাইরে, তাদেরকেও ফিরিয়ে আনার পরিকল্পনা নাকি নেই এএফএ’র। এমনকি কোপার আগে স্থায়ী কোচ নিয়োগের পরিকল্পনাও নেই। মানেটা স্পষ্ট, মেসি এবং স্থায়ী  কোচ ছাড়াই ২০১৯ সালের কোপা আমেরিকায় অংশ নেওয়ার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছে আর্জেন্টিনা!

বিশ্বকাপ ব্যর্থতার দায় চাপিয়ে কোচ হোর্হে সাম্পাওলিকেও সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। তার পরিবর্তে অন্তর্বর্তীকালীন কোচ করা হয়েছে লিওনেল স্কালোনিকে। প্রথমে শোনা গিয়েছিল ২০১৮ সালের বাকি সময়টুকুর জন্যই অস্থায়ীভাবে কোচ করা হয়েছে ৪০ বছর বয়সী স্কালোনিকে। সামনেই যেহেতু কোপা আমেরিকার কঠিন চ্যালেঞ্জ। তাই ২০১৯ সালের শুরুতেই দেখে-শুনে বিশ্বমানের একজনকে স্থায়ী কোচ হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হবে, যিনি বিশ্বসেরা মেসিকে কোচিং করানো এবং নিয়ন্ত্রণ করার যোগ্য হবেন।

সেই যোগ্যতার নিরীখে বেশ কয়েকজনের নামও ভাসছে বাতাসে। অ্যাতলেতিকো মাদ্রিদের কোচ দিয়েগো সিমিওনে, টটেনহামের কোচ মরিসিও পচেত্তিনো এবং আর্জেন্টাইন ক্লাব রিভার প্লেটের কোচ মার্সেলো গ্যালার্দোর কথাই শোনা যাচ্ছে বেশি। গুঞ্জন আছে হোসে সাবেক কোচ হোসে পেকারম্যানকে আবার ফিরিয়ে আনার বিষয়েও। কিন্তু আর্জেন্টাইন গণমাধ্যমের খবর, স্থায়ী কোচ নিয়োগের পরিকল্পনা নাকি আপাতত এএফএর নেই।

২০১৯ সালের কোপা আমেরিকার আসর বসবে ব্রাজিলে। জুন-জুলাইয়ের এই মহাদেশীয় শ্রেষ্ঠত্বের টুর্নামেন্ট নিয়েই নাকি এএফএর সুনির্দিষ্ট কোনো পরিকল্পনা নেই! তবে স্থায়ী কোচ নিয়োগ বা গঞ্জালো হিগুয়েইন, সার্জিও আগুয়েরো, অ্যাঙ্গেল ডি মারিয়াসহ অন্য সিনিয়র খেলোয়াড়দের দলে ফেরানোর বিষয় নিয়ে ততটা আলোচনা হচ্ছে না। মেসির ফেরা না ফেরা নিয়েই আলোচনাটা হচ্ছে বেশি!

নতুন করে পথ চলার শপথ নিয়ে অন্তর্বর্তী কোচ স্কালোনি এক দল তরুণকে নিয়ে দল গঠন করেছেন। তারকাবিহীন দলটি এরই মধ্যে খেলে ফেলেছে ৪টি ম্যাচ। তাতে দুটিতে জয়, একটিতে ড্র, একটিতে হার। একমাত্র সেই হারটা গতকাল মঙ্গলবার চিরশত্রু ব্রাজিলের বিপক্ষে।

এমনিতে ব্রাজিলের কাছে হার হজম করা আর্জেন্টাইনদের জন্য কঠিন। কিন্তু এবারের হারটাকে ইতিবাচক হিসেবেই দেখছে আর্জেন্টাইনরা। অনভিজ্ঞ তরুণরাও তারকাখচিত ব্রাজিলের সঙ্গে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই করেছে, এতেই খুশি তারা। আর্জেন্টাইন ফুটবলবোদ্ধাদের মনে এই বিশ্বাসও জন্ম নিয়েছে, এই তরুণদের সময় দিলে এবং যত্ন নিয়ে গড়ে তুলতে পারলে ভবিষ্যতে ভালো একটা দলই পাওয়া যাবে।

দলের খেলা দেখে এএফএ কর্তাদের মনেও এই বিশ্বাসটাই জন্মেছে। তাই মেসিসহ অন্য সিনিয়রদের ফিরিয়ে না এনে এই তরুণদের গড়ে তোলার পরিকল্পনাই নাকি করছে! তবে পরিকল্পনা এখনো পাকা নয়। এএফএস আসলে দ্বিধাদ্বন্দ্বের মধ্যে আছে। দ্বিধাদ্বন্দ্বটা কেটে গেলেই জানা যাবে মেসিসহ অন্যদের ক্যারিয়ারের ভবিষ্যত। তবে অস্থায়ী কোচ স্কালোনির ভাষ্য, মেসি যখনই ফিরবেন, তাকে স্বাগত জানানো হবে। তার জন্য ’১০ নম্বর’ জার্সিটাও তুলে রেখেছেন স্কালোনি।

কিন্তু আর্জেন্টিনার অনেক সাবেক ফুটবলারই চান না মেসিকে আবার ফিরিয়ে আনা হোক। তারা বরং নতুন করে পথ চলারই পক্ষে। আর সেই দলে আছেন আর্জেন্টাইন ফুটবল ঈশ্বর স্বয়ং ম্যারাডোনাও। আর্জেন্টিনার ১৯৮৬ বিশ্বকাপজয়ী নায়ক তো সরাসরিই মেসিকে আহ্বান জানিয়েছেন, জাতীয় দলে আর না ফিরতে। দেখা যাক জল কোন দিকে গড়ায়।

Tag :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

About Author Information

মেসিকে ছাড়াই কোপার পরিকল্পনা আর্জেন্টিনার

আপডেট টাইম : ০৪:৩০:২১ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ অক্টোবর ২০১৮

হাওর বার্তা ডেস্কঃ বিশ্বকাপ ব্যর্থতার পর আর্জেন্টিনা জাতীয় দল থেকে ‘সাময়িক অবসর’ নিয়েছেন লিওনেল মেসি। বিশ্রামের নাম করে নেওয়া এই স্বেচ্ছা অবসর থেকে কবে ফিরবেন তারও কোনো ইঙ্গিত নেই। স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন উঠছে, তবে কি আর জাতীয় দলে ফিরবেন না মেসি? এই প্রশ্নের উত্তর দেবে সময়।

তবে আর্জেন্টাইন ফুটবল ফেঢারেশনের (এএফএ) হাবভাবে স্পষ্ট, মেসিকে ছাড়াই আসন্ন কোপা আমেরিকার প্রস্তুতি-পরিকল্পনা করছে তারা! শুধু মেসি নয়, অন্য যে সিনিয়ররা আপাতত দলের বাইরে, তাদেরকেও ফিরিয়ে আনার পরিকল্পনা নাকি নেই এএফএ’র। এমনকি কোপার আগে স্থায়ী কোচ নিয়োগের পরিকল্পনাও নেই। মানেটা স্পষ্ট, মেসি এবং স্থায়ী  কোচ ছাড়াই ২০১৯ সালের কোপা আমেরিকায় অংশ নেওয়ার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছে আর্জেন্টিনা!

বিশ্বকাপ ব্যর্থতার দায় চাপিয়ে কোচ হোর্হে সাম্পাওলিকেও সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। তার পরিবর্তে অন্তর্বর্তীকালীন কোচ করা হয়েছে লিওনেল স্কালোনিকে। প্রথমে শোনা গিয়েছিল ২০১৮ সালের বাকি সময়টুকুর জন্যই অস্থায়ীভাবে কোচ করা হয়েছে ৪০ বছর বয়সী স্কালোনিকে। সামনেই যেহেতু কোপা আমেরিকার কঠিন চ্যালেঞ্জ। তাই ২০১৯ সালের শুরুতেই দেখে-শুনে বিশ্বমানের একজনকে স্থায়ী কোচ হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হবে, যিনি বিশ্বসেরা মেসিকে কোচিং করানো এবং নিয়ন্ত্রণ করার যোগ্য হবেন।

সেই যোগ্যতার নিরীখে বেশ কয়েকজনের নামও ভাসছে বাতাসে। অ্যাতলেতিকো মাদ্রিদের কোচ দিয়েগো সিমিওনে, টটেনহামের কোচ মরিসিও পচেত্তিনো এবং আর্জেন্টাইন ক্লাব রিভার প্লেটের কোচ মার্সেলো গ্যালার্দোর কথাই শোনা যাচ্ছে বেশি। গুঞ্জন আছে হোসে সাবেক কোচ হোসে পেকারম্যানকে আবার ফিরিয়ে আনার বিষয়েও। কিন্তু আর্জেন্টাইন গণমাধ্যমের খবর, স্থায়ী কোচ নিয়োগের পরিকল্পনা নাকি আপাতত এএফএর নেই।

২০১৯ সালের কোপা আমেরিকার আসর বসবে ব্রাজিলে। জুন-জুলাইয়ের এই মহাদেশীয় শ্রেষ্ঠত্বের টুর্নামেন্ট নিয়েই নাকি এএফএর সুনির্দিষ্ট কোনো পরিকল্পনা নেই! তবে স্থায়ী কোচ নিয়োগ বা গঞ্জালো হিগুয়েইন, সার্জিও আগুয়েরো, অ্যাঙ্গেল ডি মারিয়াসহ অন্য সিনিয়র খেলোয়াড়দের দলে ফেরানোর বিষয় নিয়ে ততটা আলোচনা হচ্ছে না। মেসির ফেরা না ফেরা নিয়েই আলোচনাটা হচ্ছে বেশি!

নতুন করে পথ চলার শপথ নিয়ে অন্তর্বর্তী কোচ স্কালোনি এক দল তরুণকে নিয়ে দল গঠন করেছেন। তারকাবিহীন দলটি এরই মধ্যে খেলে ফেলেছে ৪টি ম্যাচ। তাতে দুটিতে জয়, একটিতে ড্র, একটিতে হার। একমাত্র সেই হারটা গতকাল মঙ্গলবার চিরশত্রু ব্রাজিলের বিপক্ষে।

এমনিতে ব্রাজিলের কাছে হার হজম করা আর্জেন্টাইনদের জন্য কঠিন। কিন্তু এবারের হারটাকে ইতিবাচক হিসেবেই দেখছে আর্জেন্টাইনরা। অনভিজ্ঞ তরুণরাও তারকাখচিত ব্রাজিলের সঙ্গে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই করেছে, এতেই খুশি তারা। আর্জেন্টাইন ফুটবলবোদ্ধাদের মনে এই বিশ্বাসও জন্ম নিয়েছে, এই তরুণদের সময় দিলে এবং যত্ন নিয়ে গড়ে তুলতে পারলে ভবিষ্যতে ভালো একটা দলই পাওয়া যাবে।

দলের খেলা দেখে এএফএ কর্তাদের মনেও এই বিশ্বাসটাই জন্মেছে। তাই মেসিসহ অন্য সিনিয়রদের ফিরিয়ে না এনে এই তরুণদের গড়ে তোলার পরিকল্পনাই নাকি করছে! তবে পরিকল্পনা এখনো পাকা নয়। এএফএস আসলে দ্বিধাদ্বন্দ্বের মধ্যে আছে। দ্বিধাদ্বন্দ্বটা কেটে গেলেই জানা যাবে মেসিসহ অন্যদের ক্যারিয়ারের ভবিষ্যত। তবে অস্থায়ী কোচ স্কালোনির ভাষ্য, মেসি যখনই ফিরবেন, তাকে স্বাগত জানানো হবে। তার জন্য ’১০ নম্বর’ জার্সিটাও তুলে রেখেছেন স্কালোনি।

কিন্তু আর্জেন্টিনার অনেক সাবেক ফুটবলারই চান না মেসিকে আবার ফিরিয়ে আনা হোক। তারা বরং নতুন করে পথ চলারই পক্ষে। আর সেই দলে আছেন আর্জেন্টাইন ফুটবল ঈশ্বর স্বয়ং ম্যারাডোনাও। আর্জেন্টিনার ১৯৮৬ বিশ্বকাপজয়ী নায়ক তো সরাসরিই মেসিকে আহ্বান জানিয়েছেন, জাতীয় দলে আর না ফিরতে। দেখা যাক জল কোন দিকে গড়ায়।