ঢাকা ০২:৩২ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ৪ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বঙ্গবন্ধু ছিলেন জাতীয়তাবাদের স্তম্ভ

  • Reporter Name
  • আপডেট টাইম : ১১:৫০:১৯ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৭ অগাস্ট ২০১৫
  • ৩৬৮ বার

বাংলাদেশের জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান ছিলেন বাঙালি জাতীয়তাবাদের স্তম্ভ বলে আখ্যা দিলেন বিশিষ্ট সাংবাদিক সুখরঞ্জন দাশগুপ্ত। বঙ্গবন্ধুর ৪০তম শাহাদত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষ্যে সোমবার কলকাতাস্থ বাংলাদেশ উপ-হাইকমিশনের আয়োজনে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের কেপি বসু মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত ‘বঙ্গবন্ধুর জীবন ও কর্ম’ শীর্ষক স্মারক বক্তৃতায় বঙ্গবন্ধুর ওপর আলোকপাত করতে গিয়ে সুখরঞ্জন দাসগুপ্ত বলেন, বাঙালির আস্থা বলতে যা বোঝায় বঙ্গবন্ধু ছিলেন ঠিক তাই। সাধারণ মানুষের ওপরও তার প্রবল বিশ্বাস ছিল।

এদিনের আলোচনায় কলকাতায় নিযুক্ত বাংলাদেশের উপ-হাইকমিশেরর জকি আহাদ, যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের সাবেক অধ্যাপক সুচেতা ঘোষ, বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধকালীন সময়ের দূরদর্শনের সংবাদকর্মী উপেন তরফদার, বিশিষ্ট সাংবাদিক সুখরঞ্জন দাসগুপ্ত ও যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের ফ্যাকাল্টি অব ইন্টারডিসিপ্লিনারি স্টাডিস-এর ডিন অধ্যাপক আশিস মজুমদার।

উপ-হাইকমিশনার জকি আহাদ বলেন অর্ধশতাব্দী কালের প্রার্থিব জীবনে বাংলাদেশের জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান শুধু বাঙালি জাতিকেই উদ্বুদ্ধ করেন নি বরং তার বলিষ্ঠ নেতৃত্বে দৃঢ় মনোবলের সঙ্গে বাংলাদেশের জনগণকে চুড়ান্ত দিক নির্দেশনা দিয়ে গেছেন। স্বাধীন বাংলাদেশে বঙ্গবন্ধু তার জীবদ্দশায় কাঙ্ক্ষিত সোনার বাংলা দেখে যেতে না পারলেও তার আদর্শে অঙ্গীকারবদ্ধ তারই সুকন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ উন্নতির চরম শিখরে তথা সোনার বাংলার পরিণত হবে।

উপেন তরফদার বলেন, বঙ্গবন্ধু ছিলেন সারাবিশ্বের মুক্তিকামী মানুষের আলোর দিশারী। তার মতে, বঙ্গবন্ধুর আদর্শ, সংগ্রাম ও ত্যাগ আগামী প্রজন্মের মুক্তিকামী মানুষকে উদ্বুদ্ধ করবে।

অধ্যাপক সুচেতা ঘোষ জানান শেখ মুজিবর রহমানের যে আকুণ্ঠ ভালোবাসা বাঙালি ও বাংলাদেশের মানুষের প্রতি ছিল তা রাজনৈতিক সত্ত্বাকে অতিক্রম করে গিয়েছিল। বঙ্গবন্ধুর বার্তা ও স্বপ্ন আজীবন বাংলাদেশর জনগণের পাথেয় হয়ে থাকবে।

অধ্যাপক আশিষ মজুমদার বলেন দেশগন্ডির সীমানা ছাড়িয়ে সাধারণ মানুষের মুক্তিই ছিল বঙ্গবন্ধু আজীবনের স্বপ্ন। মানুষের মুক্তির জন্যই বঙ্গবন্ধু আজীবন লড়াই করে গেছেন।

অনুষ্ঠানের শুরুতে পশ্চিমবঙ্গের বুদ্ধিজীবী, গুণীজন এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের শতাধিক ছাত্র-ছাত্রীর উপস্থিতিতে বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে ‘চিরঞ্জীব বঙ্গবন্ধু’ শীর্ষক একটি তথ্যচিত্র প্রদর্শন করা হয়।

Tag :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

About Author Information

Haor Barta24

জনপ্রিয় সংবাদ

বঙ্গবন্ধু ছিলেন জাতীয়তাবাদের স্তম্ভ

আপডেট টাইম : ১১:৫০:১৯ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৭ অগাস্ট ২০১৫

বাংলাদেশের জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান ছিলেন বাঙালি জাতীয়তাবাদের স্তম্ভ বলে আখ্যা দিলেন বিশিষ্ট সাংবাদিক সুখরঞ্জন দাশগুপ্ত। বঙ্গবন্ধুর ৪০তম শাহাদত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষ্যে সোমবার কলকাতাস্থ বাংলাদেশ উপ-হাইকমিশনের আয়োজনে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের কেপি বসু মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত ‘বঙ্গবন্ধুর জীবন ও কর্ম’ শীর্ষক স্মারক বক্তৃতায় বঙ্গবন্ধুর ওপর আলোকপাত করতে গিয়ে সুখরঞ্জন দাসগুপ্ত বলেন, বাঙালির আস্থা বলতে যা বোঝায় বঙ্গবন্ধু ছিলেন ঠিক তাই। সাধারণ মানুষের ওপরও তার প্রবল বিশ্বাস ছিল।

এদিনের আলোচনায় কলকাতায় নিযুক্ত বাংলাদেশের উপ-হাইকমিশেরর জকি আহাদ, যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের সাবেক অধ্যাপক সুচেতা ঘোষ, বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধকালীন সময়ের দূরদর্শনের সংবাদকর্মী উপেন তরফদার, বিশিষ্ট সাংবাদিক সুখরঞ্জন দাসগুপ্ত ও যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের ফ্যাকাল্টি অব ইন্টারডিসিপ্লিনারি স্টাডিস-এর ডিন অধ্যাপক আশিস মজুমদার।

উপ-হাইকমিশনার জকি আহাদ বলেন অর্ধশতাব্দী কালের প্রার্থিব জীবনে বাংলাদেশের জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান শুধু বাঙালি জাতিকেই উদ্বুদ্ধ করেন নি বরং তার বলিষ্ঠ নেতৃত্বে দৃঢ় মনোবলের সঙ্গে বাংলাদেশের জনগণকে চুড়ান্ত দিক নির্দেশনা দিয়ে গেছেন। স্বাধীন বাংলাদেশে বঙ্গবন্ধু তার জীবদ্দশায় কাঙ্ক্ষিত সোনার বাংলা দেখে যেতে না পারলেও তার আদর্শে অঙ্গীকারবদ্ধ তারই সুকন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ উন্নতির চরম শিখরে তথা সোনার বাংলার পরিণত হবে।

উপেন তরফদার বলেন, বঙ্গবন্ধু ছিলেন সারাবিশ্বের মুক্তিকামী মানুষের আলোর দিশারী। তার মতে, বঙ্গবন্ধুর আদর্শ, সংগ্রাম ও ত্যাগ আগামী প্রজন্মের মুক্তিকামী মানুষকে উদ্বুদ্ধ করবে।

অধ্যাপক সুচেতা ঘোষ জানান শেখ মুজিবর রহমানের যে আকুণ্ঠ ভালোবাসা বাঙালি ও বাংলাদেশের মানুষের প্রতি ছিল তা রাজনৈতিক সত্ত্বাকে অতিক্রম করে গিয়েছিল। বঙ্গবন্ধুর বার্তা ও স্বপ্ন আজীবন বাংলাদেশর জনগণের পাথেয় হয়ে থাকবে।

অধ্যাপক আশিষ মজুমদার বলেন দেশগন্ডির সীমানা ছাড়িয়ে সাধারণ মানুষের মুক্তিই ছিল বঙ্গবন্ধু আজীবনের স্বপ্ন। মানুষের মুক্তির জন্যই বঙ্গবন্ধু আজীবন লড়াই করে গেছেন।

অনুষ্ঠানের শুরুতে পশ্চিমবঙ্গের বুদ্ধিজীবী, গুণীজন এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের শতাধিক ছাত্র-ছাত্রীর উপস্থিতিতে বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে ‘চিরঞ্জীব বঙ্গবন্ধু’ শীর্ষক একটি তথ্যচিত্র প্রদর্শন করা হয়।