ঢাকা ০১:৩১ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই ২০২৪, ১০ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

যুক্তরাজ্যের ভিসা মিলেছে ২০ দল যেমন আছে তেমনই থাকবে : খালেদা

  • Reporter Name
  • আপডেট টাইম : ১০:০১:১২ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৩ অগাস্ট ২০১৫
  • ৩৩৫ বার

‘২০ দলীয় জোট নিয়ে কে কী বলল সেটা কোনো বিষয় নয়। জোট যেমন ছিল তেমনই থাকবে। এ জোটে কোনো ভাঙন ধরবে না।’ প্রায় ৯ মাস পর জোটের বৈঠকে এমন কথাই বলেছেন জোটপ্রধান ও বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। গত রাত সাড়ে ৮টা থেকে প্রায় দুই ঘণ্টাব্যাপী গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।
বৈঠকে উপস্থিত জোটের এক নেতা কালের কণ্ঠকে জানান, জোটের ভাঙন বা এর কাঠামোর পরিবর্তন বিষয়ে জোটের এক নেতা খালেদা জিয়ার নজরে আনেন। জবাবে বেগম জিয়া এসব কথা বলেন। বৈঠকে খালেদা জিয়া বলেন, ‘আমি জোট করেছি আপনাদের সঙ্গে। এ নিয়ে কে কী বলেছেন সে নিয়ে বসে থাকলে চলবে না। এখন কাজ করার সময়। আপনারা যে যার অবস্থান থেকে সরকারের নানা অনাচারের বিরুদ্ধে নিয়মিত কথা বলুন। আর তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনেই নির্বাচন দিতে হবে, অন্য কিছু আমরা মানব না- এ বিষয়টি তো আমি আগেই পরিষ্কার করেছি।’
বৈঠকে জোটে জামায়াতের অবস্থান, মোদির সঙ্গে খালেদা জিয়ার একান্ত বৈঠক, ব্লগার হত্যাসহ দেশের আইনশৃঙ্খলা, বিচারব্যবস্থা, খালেদা জিয়ার বিদেশ সফরসহ নানা বিষয়ে আলোচনা হয়েছে।
বৈঠকের একপর্যায়ে বিজেপির সভাপতি আন্দালিব রহমান পার্থ বিএনপিপ্রধান ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির মধ্যে হয়ে যাওয়া একান্ত বৈঠক প্রসঙ্গে জানতে চান। জবাবে বেগম জিয়া বলেন, ‘৫ জানুয়ারি নির্বাচন, এরপর বিরোধীদলীয় জোটের ওপর জুলুম-অত্যাচারসহ নানা বিষয় আমি তুলে ধরেছি। আমি মোদিকে বলেছি, আওয়ামী লীগের সঙ্গে নয়, জনগণের সঙ্গে সম্পর্ক করুন। প্রয়োজনে আপনারা রিপোর্ট নিন, জনগণ কার সঙ্গে আছে।’
বৈঠক সূত্র আরো জানায়, খালেদা জিয়া সাফ জানিয়ে দিয়েছেন শেখ হাসিনার অধীনে কোনো নির্বাচনে তিনি যাবেন না। তবে তিনি এ-ও বলেছেন, ‘বিএনপি ইতিবাচক চিন্তা করছে। মারামারি হানাহানির রাজনীতি আগেও করিনি, আগামীতেও করব না।’
বিএনপি পুনর্গঠন ও তাঁর লন্ডন সফরের কথা জানিয়ে খালেদা জিয়া বৈঠকে বলেছেন, বিএনপি পুনর্গঠনের জন্য কাজ করছেন তিনি। এ জন্য দলের বিভিন্ন পর্যায়ে চিঠি দেওয়া হয়েছে। চলতি বছরে কাউন্সিল করতে চান। তিনি চোখের চিকিৎসা করাতে লন্ডনে যাবেন। সেখানে ১০ দিনের মতো থাকবেন।
বৈঠকে খালেদা জিয়া বলেন, ‘কেউ ধর্মকে আঘাত করলে তার নিন্দা জানান, একই সঙ্গে আইন অমান্য করে কেউ কাউকে হত্যা করলে তারও নিন্দা জানান। আইনশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে না থাকার কারণে দেশে একের পর এক হত্যা, বিশেষ করে শিশু ও নারীদের হত্যার ঘটনা ঘটছে। সরকার বিচার বিভাগকে ধ্বংস করার সব ধরনের ব্যবস্থাই করেছে। চিহ্নিত দুর্নীতিবাজদের বেছে বেছে অব্যাহতির সার্টিফিকেট দেওয়া হচ্ছে দুদকে। আর বিরোধী জোটের নেতাদের অহেতুক হয়রানি করা হচ্ছে।’
বৈঠক শেষে জোটের অন্যতম শরিক জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান কাজী জাফর আহমদ সাংবাদিকদের বলেন, রাজনৈতিক পরিস্থিতি ও পরবর্তী করণীয় বিষয় নিয়ে খোলামেলা আলোচনা হয়েছে। বৈঠকের সিদ্ধান্ত বৃহস্পতিবার সকাল ১১টায় গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে জানানো হবে।
বৈঠকে জোটের শীর্ষ নেতাদের মধ্যে জাতীয় পার্টির কাজী জাফর আহমদ, এলডিপির অলি আহমদ, জামায়াতে ইসলামীর আবদুল হালিম, ইসলামী ঐক্যজোটের আবদুল লতিফ নেজামী, বিজেপির আন্দালিব রহমান পার্থ, কল্যাণ পার্টির সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম, জাগপার শফিউল আলম প্রধান, খেলাফত মজলিশের অধ্যাপক আহমেদ আবদুল কাদের, এনডিপির খন্দকার গোলাম মুর্তজা, এনপিপির ফরিদুজ্জামান ফরহাদ, লেবার পার্টির মোস্তাফিজুর রহমান ইরান, ন্যাপের জেবেল রহমান গানি, মুসলিম লীগের এ এইচ এম কামরুজ্জামান খান, পিপলস লীগের গরীবে নেওয়াজ, ন্যাপ ভাসানীর আজহারুল ইসলাম, ইসলামিক পার্টির ছায়েদুল হাসান ইকবাল, সাম্যবাদী দলের সাঈদ আহম্মেদ, জমিয়তে উলামা ইসলামের মুফতি মুহাম্মদ ওয়াক্কাস, ডিএলের সাইফুদ্দিন মনি প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। এ ছাড়া বৈঠকে জাতীয় পার্টির (কাজী জাফর) টি আই এম ফজলে রাব্বী ও বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খানও ছিলেন।
গত ৫ জানুয়ারি থেকে শুরু হওয়া তিন মাসের টানা আন্দোলনের পর জোট নেতাদের সঙ্গে বিএনপি চেয়ারপারসনের এটি প্রথম বৈঠক। সর্বশেষ গত ২২ নভেম্বর জোটের শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে খালেদা জিয়া বৈঠক করেছিলেন।
ভিসা পেয়েছেন খালেদা : বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া যুক্তরাজ্যে যাওয়ার ভিসা পেয়েছেন। তবে কবে তিনি সেখানে যাবেন সে বিষয়টি এখনো চূড়ান্ত হয়নি। বিএনপি চেয়ারপারসনের গুলশান কার্যালয়ের একটি সূত্র ভিসা পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। সূত্র জানিয়েছে, ১৪ অথবা ১৮ আগস্ট এমিরেটস এয়ারলাইনসের টিকিট বুকিং দেওয়া আছে খালেদা জিয়ার জন্য। এই দুই দিনের যেকোনো দিন লন্ডনের উদ্দেশে রওনা হতে পারেন খালেদা জিয়া।

Tag :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

About Author Information

Haor Barta24

জনপ্রিয় সংবাদ

যুক্তরাজ্যের ভিসা মিলেছে ২০ দল যেমন আছে তেমনই থাকবে : খালেদা

আপডেট টাইম : ১০:০১:১২ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৩ অগাস্ট ২০১৫

‘২০ দলীয় জোট নিয়ে কে কী বলল সেটা কোনো বিষয় নয়। জোট যেমন ছিল তেমনই থাকবে। এ জোটে কোনো ভাঙন ধরবে না।’ প্রায় ৯ মাস পর জোটের বৈঠকে এমন কথাই বলেছেন জোটপ্রধান ও বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। গত রাত সাড়ে ৮টা থেকে প্রায় দুই ঘণ্টাব্যাপী গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।
বৈঠকে উপস্থিত জোটের এক নেতা কালের কণ্ঠকে জানান, জোটের ভাঙন বা এর কাঠামোর পরিবর্তন বিষয়ে জোটের এক নেতা খালেদা জিয়ার নজরে আনেন। জবাবে বেগম জিয়া এসব কথা বলেন। বৈঠকে খালেদা জিয়া বলেন, ‘আমি জোট করেছি আপনাদের সঙ্গে। এ নিয়ে কে কী বলেছেন সে নিয়ে বসে থাকলে চলবে না। এখন কাজ করার সময়। আপনারা যে যার অবস্থান থেকে সরকারের নানা অনাচারের বিরুদ্ধে নিয়মিত কথা বলুন। আর তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনেই নির্বাচন দিতে হবে, অন্য কিছু আমরা মানব না- এ বিষয়টি তো আমি আগেই পরিষ্কার করেছি।’
বৈঠকে জোটে জামায়াতের অবস্থান, মোদির সঙ্গে খালেদা জিয়ার একান্ত বৈঠক, ব্লগার হত্যাসহ দেশের আইনশৃঙ্খলা, বিচারব্যবস্থা, খালেদা জিয়ার বিদেশ সফরসহ নানা বিষয়ে আলোচনা হয়েছে।
বৈঠকের একপর্যায়ে বিজেপির সভাপতি আন্দালিব রহমান পার্থ বিএনপিপ্রধান ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির মধ্যে হয়ে যাওয়া একান্ত বৈঠক প্রসঙ্গে জানতে চান। জবাবে বেগম জিয়া বলেন, ‘৫ জানুয়ারি নির্বাচন, এরপর বিরোধীদলীয় জোটের ওপর জুলুম-অত্যাচারসহ নানা বিষয় আমি তুলে ধরেছি। আমি মোদিকে বলেছি, আওয়ামী লীগের সঙ্গে নয়, জনগণের সঙ্গে সম্পর্ক করুন। প্রয়োজনে আপনারা রিপোর্ট নিন, জনগণ কার সঙ্গে আছে।’
বৈঠক সূত্র আরো জানায়, খালেদা জিয়া সাফ জানিয়ে দিয়েছেন শেখ হাসিনার অধীনে কোনো নির্বাচনে তিনি যাবেন না। তবে তিনি এ-ও বলেছেন, ‘বিএনপি ইতিবাচক চিন্তা করছে। মারামারি হানাহানির রাজনীতি আগেও করিনি, আগামীতেও করব না।’
বিএনপি পুনর্গঠন ও তাঁর লন্ডন সফরের কথা জানিয়ে খালেদা জিয়া বৈঠকে বলেছেন, বিএনপি পুনর্গঠনের জন্য কাজ করছেন তিনি। এ জন্য দলের বিভিন্ন পর্যায়ে চিঠি দেওয়া হয়েছে। চলতি বছরে কাউন্সিল করতে চান। তিনি চোখের চিকিৎসা করাতে লন্ডনে যাবেন। সেখানে ১০ দিনের মতো থাকবেন।
বৈঠকে খালেদা জিয়া বলেন, ‘কেউ ধর্মকে আঘাত করলে তার নিন্দা জানান, একই সঙ্গে আইন অমান্য করে কেউ কাউকে হত্যা করলে তারও নিন্দা জানান। আইনশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে না থাকার কারণে দেশে একের পর এক হত্যা, বিশেষ করে শিশু ও নারীদের হত্যার ঘটনা ঘটছে। সরকার বিচার বিভাগকে ধ্বংস করার সব ধরনের ব্যবস্থাই করেছে। চিহ্নিত দুর্নীতিবাজদের বেছে বেছে অব্যাহতির সার্টিফিকেট দেওয়া হচ্ছে দুদকে। আর বিরোধী জোটের নেতাদের অহেতুক হয়রানি করা হচ্ছে।’
বৈঠক শেষে জোটের অন্যতম শরিক জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান কাজী জাফর আহমদ সাংবাদিকদের বলেন, রাজনৈতিক পরিস্থিতি ও পরবর্তী করণীয় বিষয় নিয়ে খোলামেলা আলোচনা হয়েছে। বৈঠকের সিদ্ধান্ত বৃহস্পতিবার সকাল ১১টায় গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে জানানো হবে।
বৈঠকে জোটের শীর্ষ নেতাদের মধ্যে জাতীয় পার্টির কাজী জাফর আহমদ, এলডিপির অলি আহমদ, জামায়াতে ইসলামীর আবদুল হালিম, ইসলামী ঐক্যজোটের আবদুল লতিফ নেজামী, বিজেপির আন্দালিব রহমান পার্থ, কল্যাণ পার্টির সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম, জাগপার শফিউল আলম প্রধান, খেলাফত মজলিশের অধ্যাপক আহমেদ আবদুল কাদের, এনডিপির খন্দকার গোলাম মুর্তজা, এনপিপির ফরিদুজ্জামান ফরহাদ, লেবার পার্টির মোস্তাফিজুর রহমান ইরান, ন্যাপের জেবেল রহমান গানি, মুসলিম লীগের এ এইচ এম কামরুজ্জামান খান, পিপলস লীগের গরীবে নেওয়াজ, ন্যাপ ভাসানীর আজহারুল ইসলাম, ইসলামিক পার্টির ছায়েদুল হাসান ইকবাল, সাম্যবাদী দলের সাঈদ আহম্মেদ, জমিয়তে উলামা ইসলামের মুফতি মুহাম্মদ ওয়াক্কাস, ডিএলের সাইফুদ্দিন মনি প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। এ ছাড়া বৈঠকে জাতীয় পার্টির (কাজী জাফর) টি আই এম ফজলে রাব্বী ও বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খানও ছিলেন।
গত ৫ জানুয়ারি থেকে শুরু হওয়া তিন মাসের টানা আন্দোলনের পর জোট নেতাদের সঙ্গে বিএনপি চেয়ারপারসনের এটি প্রথম বৈঠক। সর্বশেষ গত ২২ নভেম্বর জোটের শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে খালেদা জিয়া বৈঠক করেছিলেন।
ভিসা পেয়েছেন খালেদা : বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া যুক্তরাজ্যে যাওয়ার ভিসা পেয়েছেন। তবে কবে তিনি সেখানে যাবেন সে বিষয়টি এখনো চূড়ান্ত হয়নি। বিএনপি চেয়ারপারসনের গুলশান কার্যালয়ের একটি সূত্র ভিসা পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। সূত্র জানিয়েছে, ১৪ অথবা ১৮ আগস্ট এমিরেটস এয়ারলাইনসের টিকিট বুকিং দেওয়া আছে খালেদা জিয়ার জন্য। এই দুই দিনের যেকোনো দিন লন্ডনের উদ্দেশে রওনা হতে পারেন খালেদা জিয়া।