ভাঙ্গা থেকে যশোরে ১২০ কিমি বেগে ছুটল পরীক্ষামূলক ট্রেন

ফরিদপুরের ভাঙ্গা উপজেলার বামনকান্দা জংশন থেকে যশোরের রুপদিয়ার উদ্দেশ্যে ছেড়ে গেল উচ্চক্ষমতা একটি পরীক্ষামূলক ট্রায়াল ট্রেন।

শনিবার সকাল ৮টা ৪০ মিনিটে ভাঙ্গার বামনকান্দা জংশন থেকে ট্রেনটি ছেড়ে যায়। ট্রেনটির চালক হিসেবে রয়েছেন মো. সাখাওয়াত হোসেন।

পরীক্ষামূলক ট্রেন যাত্রায় উপস্থিত হয়ে পর্যবেক্ষণ করছেন রেল প্রকল্পে চায়না ইঞ্জিনিয়ার, সেনাবাহিনী ও রেল প্রকল্পে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ।

এদিক নতুন রেললাইন চালু হওয়ার সংবাদে রেললাইনের আশে-পাশের মানুষের মধ্যে চলছে উৎসবের আমেজ।

এ বিষয়ে ভাঙ্গার রেলস্টেশন মাস্টার মো. জিল্লুর রহমান জানান, শনিবার সকাল ৮টা ৪০ মিনিটে উচ্চগতি সম্পন্ন এই পরীক্ষামূলক ট্রেনটি যশোরের রুপদিয়ার উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায়। ওই ট্রেনটি ১২০ কিলোমিটার গতিতে যশোর পৌঁছাইতে সময় লাগবে মাত্র এক ঘণ্টা। পরদিন আবারো ৩১ মার্চ সকালে রুপদিয়া রেলস্টেশনের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাবে। আবার যশোর থেকে ভাঙ্গার উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসবে। এভাবে কয়েকবার পরীক্ষামূলক ট্রায়াল ট্রেন চলাচল করবে।

এ বিষয় ভাঙ্গা উপজেলার বামনকান্দা রেলওয়ে সেফটি ইনচার্জ শেখ নাছিম জানান, ভাঙ্গা থেকে ফরিদপুর রাজবাড়ী হয়ে যশোর পৌঁছাতে সময় লাগতো ৪-৫ ঘণ্টা। সেখানে আজ নতুন রেললাইন দিয়ে ভাঙ্গা থেকে যশোর পর্যন্ত পৌঁছাতে সময় লাগবে মাত্র এক ঘণ্টা। আজ শনিবার সকাল ৮টা ৪০ মিনিটে যশোর রূপদিয়া উদ্দেশ্যে ৫টি মালবাহী ট্রেন ছেড়ে গেল। এবার যশোর থেকে ভাঙ্গা ফিরে  আসবে। আজ বেলা ১২টার দিকে ৫টি মালবাহী ও আরো ৫টি যাত্রীবাহী ট্রেন যশোর রুপদিয়ার উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাবে।  আগামীকাল রোববার সকাল থেকে উচ্চক্ষমতা সম্পন্ন আরেকটি ট্রায়াল ট্রেন যশোরের রূপদিয়ার উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাবে। আবার যশোর থেকে ভাঙ্গায় ফিরে আসবে। দুপুরে ভাঙ্গা থেকে পুনরায় আবার যশোর এবং যশোর থেকে ভাঙ্গায় আসবে।

ঈদের পর আনুষ্ঠানিকভাবে নতুন রেলপথ উদ্বোধন করা হবে।  নতুন রেলপথ চালু হলে দক্ষিণবঙ্গের মানুষের ভাগ্য আরেক ধাপ এগিয়ে যাবে।

 

Print Friendly, PDF & Email

     এ ক্যাটাগরীর আরো খবর