হাওরে ঘুরতে যাওয়ার পথে সড়কেই লাশ হলেন দুই পর্যটক

কিশোরগঞ্জের নিকলীতে বেড়াতে যাওয়ার উদ্দেশে গাজীপুর মহানগরীর কাশিমপুর বেক্সিমকো এলাকা থেকে ১০ জনের একটি দলটি ভাড়া করা মাইক্রোবাসে চেপেছিল। তবে গন্তব্যে আর যাওয়া হলো না তাদের। যাত্রা পথে গাজীপুর মহানগরী কোনাবাড়ী উড়ালসড়কের পূর্ব পাশে বাইমাইল এলাকায় সড়ক দুর্ঘটনায় পড়ে মাইক্রোবাসের দুই যাত্রী নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও আটজন।

আজ শুক্রবার সকাল সাতটার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত দুজন হলেন মো. শাহ আলম (৩০) ও জুয়েল মিয়া (৩২)। শাহ আলম নীলফামারী সদর থানার দারোয়ানী গ্রামের রাশিদুল ইসলামের ছেলে। তিনি বেক্সিমকো ইন্ডাস্ট্রিয়াল কারখানার মেকানিক্যাল পদে চাকরি করতেন। জুয়েল মিয়ার বিস্তারিত পরিচয় পাওয়া যায়নি।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, বেক্সিমকো এলাকার আশপাশের কারখানার ১০ শ্রমিক একটি মাইক্রোবাস ভাড়া করে কিশোরগঞ্জের নিকলী হাওরে বেড়াতে যাওয়ার উদ্দেশে বের হয়। শুক্রবার সকাল সাতটার দিকে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের কোনাবাড়ী উড়ালসড়ক অতিক্রম করার পর বাইমাইল এলাকায় পৌঁছালে চলন্ত মাইক্রোবাসের চাকা ফেটে গিয়ে পাশে দাঁড়িয়ে থাকা একটি কাভার্ড ভ্যানের সঙ্গে সংঘর্ষ হয়। এতে মাইক্রোবাসটি সামনে ও পাশে দুমড়েমুচড়ে যায়।

এতে ঘটনাস্থলেই মারা যান সিটের পেছনে বসে থাকা শাহ আলম। জুয়েল রানাকে উদ্ধার করে প্রথমে কোনাবাড়ী হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে অবস্থার অবনতি হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথে তিনি মৃত্যুবরণ করেন।

কোনাবাড়ী থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আবুল কাশেম জানান, হতাহত ব্যক্তিদের বিস্তারিত পরিচয় এখনো পাওয়া যায়নি। তবে তারা সবাই কারখানায় কাজ করেন। শুক্রবার ছুটির দিনে তারা মাইক্রোবাস নিয়ে নিকলী হাওর এলাকায় বেড়াতে যাচ্ছিলেন। মাইক্রোবাসটি আটক করা হয়েছে, তবে চালককে পাওয়া যায়নি। ধারণা করা হচ্ছে, চালক পালিয়ে গেছেন।

Print Friendly, PDF & Email

     এ ক্যাটাগরীর আরো খবর