,

ফের অঘটন! সব হিসাব উল্টে দিচ্ছে এশীয়ান ফুটবলরা

হাওর বার্তা ডেস্কঃ সৌদি আরবের অপ্রত্যাশিত জয়ের পর আরও একটা অঘটনের আশায় ছিলেন এশিয়ার ফুটবলপ্রেমীরা। তাদের আশাহত করল না জাপান। বুধবার দোহার খলিফা ইন্টারন্যাশনাল স্টেডিয়ামে জার্মানিকে ২-১ গোলে হারিয়ে বিশ্বকাপ অভিযান শুরু করল জাপান।

গতবার দক্ষিণ কোরিয়ার কাছে হেরে বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্ব থেকে ছিটকে গিয়েছিল জার্মানি। সেটা ছিল গ্রুপের শেষ ম্যাচ। আর এবার বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচেই হারল হান্সি ফ্লিকের শিষ্যরা। এশিয়ার আরেক দেশ জাপানের কাছে। বার বার এশিয়ার দেওয়ালেই ধাক্কা খাচ্ছে ২০১৪ সালের বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা।

জার্মানির মতো শক্তির সামনে পড়েও গুটিয়ে থাকেনি জাপানের ফুটবলাররা। প্রথম ম্যাচেই জার্মানির রক্ষণভাগের দুর্বলতা বার বার দেখিয়ে দিল জাপান। গোটা ম্যাচে সমানে সমানে লড়াই করল তারা। শুরুটা আক্রমণাত্মক মেজাজেই করে জাপানিরা। উল্টো জার্মানিই কিছুটা ধীরে শুরু করে। হতে পারে প্রতিযোগিতার প্রথম ম্যাচে প্রতিপক্ষকে কিছুটা বুঝে নেওয়ার চেষ্টা করছিলেন ম্যানুয়েল ন্যয়াররা।

ম্যাচের ৫ মিনিটে প্রথম কর্ণার পায় জাপান। তার তিন মিনিট পরেই গোলের সুযোগ পেয়ে যায় এশিয়ার দেশটি। গোলও করেন জাপানের মিয়েদা। তবে তা বাতিল হয়ে যায় সেই অফসাইডের ফাঁদে পড়ে।

জাপান বিপজ্জনক হয়ে উঠছে বুঝতে পেরে স্বাভাবিক খেলা শুরু করে জার্মানি। ধীরে ধীরে মাঝমাঠের দখল নিয়ে নেন কিমিচ জোসুয়া, থমাস মুলাররা। ক্রমশ জার্মান আক্রমণের ঝাঁঝ বাড়তে থাকে জাপানের বক্সে। তারপরও প্রতি আক্রমণ নির্ভর ফুটবল খেলতে শুরু করে এশীয় ফুটবলের এক নম্বর শক্তি। আর তাতেই বাজিমাত করল জাপানিরা।

৩৩ মিনিটে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে যায় জার্মানি। পেনাল্টি থেকে গোল করেন গুন্ডয়ান। এই গোলের জন্য দায়ী অবশ্য জাপানের গোলরক্ষক গোন্ডা। তিনিই বক্সের মধ্যে ফাউল করেন জার্মানির এক ফুটবলারকে।

এরপর প্রথমার্ধে একাধিক সুযোগ পেয়েও গোলের সংখ্যা বাড়াতে পারেনি জার্মানি। গোল করার একাধিক সুযোগ পেয়েছিল জাপানও। তারাও সুযোগ কাজে লাগাতে পারেনি।

দ্বিতীয়ার্ধে শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক ফুটবল খেলতে শুরু করে জার্মানি। প্রায় পুরো সময়জুড়েই বল ঘোরাফেরা করেছে জাপানের অর্ধে। দ্বিতীয়ার্ধের শুরুর দিকে গুন্ডয়ার একটি দুরন্ত শট পোস্টে লেগে ফিরে আসে। তবু দমে না গিয়ে এই অর্ধে বাজিমাত করল এশীয়রা।

৭৫ মিনিটে জাপানের হয়ে প্রথম গোলটি করেন রিটসু ডোয়ান। ফিরতি বলে গোল করেন তিনি। সমতা ফেরানোর পর আরও চাপ বাড়ায় জাপান। অন্যদিকে চাপে পড়ে যায় জার্মানি। মুলাররা গোল করার চেষ্টা করলেও লাভ হয়নি। বরং, কিছুটা খেলার গতির বিপরীতেই ৮৩ মিনিটে অনবদ্য গোলে জাপানকে ২-১ ব্যবধানে এগিয়ে দেন তাকুমা আসানো।

জাপানের দ্বিতীয় গোলের পরেই বিশ্বকাপের দ্বিতীয় অঘটন কার্যত নিশ্চিত হয়ে যায়। পিছিয়ে পরার পর সমতা ফেরানোর জন্য সংযুক্ত সময়ের ৯ মিনিট-সহ মোট ১৬ মিনিট সময় পায় চারবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা। প্রথমার্ধের ভুলের প্রায়শ্চিত্ত করতে দ্বিতীয়ার্ধে দুরন্ত খেলেন জাপানের গোলরক্ষক। মূলত গোন্ডার কাছেই বার বার আটকে গেল জার্মানির আক্রমণ।

ফলে খলিফা আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে গ্রুপ ‘এইচ’-এর ম্যাচে ২-১ গোলে জয় তুলে নেয় জাপান। এর আগে মঙ্গলবার দুইবারের চ্যাম্পিয়ন হট ফেভারিট আর্জেন্টিনাকে ২-১ গোলে হারিয়ে মাটিতে নামায় আরেক এশিয় দল সৌদি আরব।

Print Friendly, PDF & Email

     এ ক্যাটাগরীর আরো খবর