,

দলীয় প্রার্থীর বিরুদ্ধে অবস্থান নিলে কঠোর শাস্তিঃ প্রধানমন্ত্রী

হাওর বার্তা ডেস্কঃ স্থানীয় সরকার নির্বাচনে যারা দলীয় প্রার্থীর বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছিলেন সেই সকল সংসদ সদস্যরা কঠোর শাস্তি পাবেন বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বুধবার (২ নভেম্বর) রাতে জাতীয় সংসদ ভবনে সরকারি দলের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত আওয়ামী লীগের সংসদীয় দলের সভায় প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন।

এসময় বিএনপিসহ বিরোধীদলগুলোর আন্দোলন-সংগ্রামে সতর্ক থাকার নির্দেশ দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আন্দোলনের নামে অতীতের মতো জ্বালাও-পোড়াও করা হলে তা কঠোরভাবে দমন করা হবে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিএনপি গণতান্ত্রিক উপায়ে সভা-সমাবেশ করলে সরকারের কোনো আপত্তি নেই। তবে আন্দোলনের নামে সন্ত্রাস করলে তাদের ছাড় দেওয়া হবে না। এ সময় প্রধানমন্ত্রী দলের এমপিদের সরকারের উন্নয়ন জনগণের মাঝে তুলে ধরার নির্দেশ দেন। সরকারের কাজগুলো জনগণের মধ্যে তুলে ধরলে এবং নিজেরা কাজ করলে বিএনপির আন্দোলনে কিছু হবে না বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

করোনা সংক্রমণ পরিস্থিতির কারণে দীর্ঘদিন পর সরকারি দল আওয়ামী লীগের সংসদীয় দলের সভা ডাকা হয়। ২০২০ সালের মার্চে দেশে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ দেখা দেওয়ার পর আওয়ামী লীগের সংসদীয় দলের কোনো সভা হয়নি। স্বাস্থ্যবিধি মেনে সংসদ অধিবেশন চললেও তা ছিল সংক্ষিপ্ত।

করোনা পরবর্তী এই সভায় দলীয় সংসদ সদস্যরা করোনা পরিস্থিতি ও বৈশ্বিক সংকট মোকাবিলায় প্রধানমন্ত্রীর দৃঢ় নেতৃত্বের প্রশংসা করেন এবং তাকে ধন্যবাদ জানান।

সভায় অংশগ্রহণকারী আওয়ামী লীগের কয়েকজন সংসদ সদস্য জাগো নিউজকে জানান, সভায় বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি, বিরোধীদলের আন্দোলন ও জেলা পরিষদসহ স্থানীয় সরকার নির্বাচন নিয়ে আলোচনা হয়েছে। এসময় দলীয় এমপি যারা স্থানীয় সরকার পর্যায়ের বিভিন্ন নির্বাচনে বিদ্রোহী প্রার্থীদের মদদ দিয়েছেন, দলীয় প্রার্থীর বিরুদ্ধে কাজ করেছেন এবং নৌকা মার্কার প্রার্থীকে পরাজিত করেছেন, তাদের উচিত শিক্ষা দেওয়া হবে বলে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি আগামী নির্বাচনে তাদেরকে দলের মনোনয়ন না দেওয়ার ইঙ্গিত দিয়েছেন।

সভায় বিএনপির আন্দোলনের বিষয় উঠলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, তারা সমাবেশ করছে করুক। গণতান্ত্রিক উপায়ে সভা-সমাবেশ আমরা সমর্থন করি। তাদের তো আমরা সমাবেশ করতে বাধা দিচ্ছি না। সভা-সমাবেশ করতে পারে। তাদের সমাবেশ করার অধিকার আছে। কিন্ত আগের মতো যদি আবার সন্ত্রাস করে, জ্বালাও-পোড়াও করে, তবে ছাড় দেওয়া হবে না। কঠিনভাবে তাদের দমন করা হবে। তাদের সঙ্গে কোনো আপোস করা হবে না বলেও জানান তিনি।

সভায় দলীয় এমপিদের সাধারণ মানুষের মাঝে কাজ করার নির্দেশ দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, দলীয় শৃঙ্খলা ঠিক রাখতে হবে। একই সঙ্গে নিজেদের কাজ ঠিকমতো করতে হবে। সরকারের উন্নয়ন জনগণের মধ্যে ভালোভাবে তুলে ধরতে হবে। সরকারের বিরুদ্ধে অপপ্রচার রোধ করতে তৎপর থাকতে হবে। যখনই কোনো গুজব ছড়ায়, অপপ্রচার করা হয়, তখনই তার জবাব দিতে হবে। সবার সামনে সঠিক তথ্য তুলে ধরতে হবে। তাহলে মানুষ বিভ্রান্ত হবে না। আওয়ামী লীগ সরকার যে কাজগুলো করেছে সেটা মানুষের কাছে ঠিকমতো তুলে ধরলে এবং নিজেরা ঠিকমতো কাজ কললে বিএনপির আন্দোলন হালে পানি পাবে না বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

 

Print Friendly, PDF & Email

     এ ক্যাটাগরীর আরো খবর