,

03

পড়াশোনা নিয়ে হতাশ হওয়া যাবে না: জবি উপাচার্য

মোস্তাকিম ফারুকী:  “বৈশ্বিক মহামারী করোনা পরিস্থিতির জন্য শিক্ষার্থীদের পড়াশোনা অনেক পিছিয়ে আছে, তবে পড়াশোনা নিয়ে হতাশ হওয়া যাবে না” বলে মন্তব্য করেছেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় (জবি) দায়িত্বপ্রাপ্ত উপাচার্য অধ্যাপক ড. কামালউদ্দীন আহমেদ।
বুধবার (২১ এপ্রিল) সকাল ১০ টা ৩০ মিনিট থেকে শুরু হওয়া জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজকর্ম বিভাগ কর্তৃক আয়োজিত ‘বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের শিক্ষাজীবন ও মানসিক স্বাস্থ্য’ বিষয়ক এক অনলাইন সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
তিনি আরো বলেন, শিক্ষার্থীদের অবস্থা যাচাইয়ের মানদণ্ড পরিক্ষা, পরিক্ষা না হওয়ায় শিক্ষার্থীরা পরবর্তী স্থরে যেতে পারছে না, অংশগ্রহণ করতে পারছে না বিভিন্ন চাকরির পরিক্ষায়। তাই কিভাবে অনলাইনে পরিক্ষা নেওয়া যাই, সে ব্যাপার সবাইকে চিন্তা করতে বলা হয়েছে। তবে আমাদের এ বিষয়টাও খেয়াল রাখতে হবে, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা বেশির ভাগই মধ্যবিত্ত পরিবারের।
করোনা পরিস্থিতিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের শিক্ষাজীবন ও মানসিক স্বাস্থ্য উন্নয়ন বিষয়ক অনলাইন সেমিমারে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. অরুণ কুমার গোস্বামী। তিনি বলেন, বর্তমান সময়ে শিক্ষার্থীদের পড়াশোনার অবস্থা খুবই নাজেহাল। তবে পড়াশোনা নিয়ে ডিপ্রেসড হওয়া যাবে না এবং বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী হিসেবে একজন সচেতন শিক্ষার্থী হিসেবে সকলকে স্বাস্থ্য নিয়ে খুব সচেতন থাকতে হবে৷ বাহিরে বের হলে সামাজিক দূরত্ব, মাস্ক পরিধান করে বের হতে হবে৷
এরপর স্বাগত বক্তা হিসেবে সমাজকর্ম বিভাগের অধ্যাপক ড. আনোয়ার হোসেন, শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজকর্ম বিভাগের অধ্যাপক তাহমিনা ইসলাম, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী কল্যান ও পরামর্শদাতা কেন্দ্রের সহকারী পরিচালক ইফরাত জাহান (মনোবিজ্ঞানী) এবং জবির সমাজকর্ম বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. রাজিনা সুলতানা ধারাবাহিকভাবে বক্তব্য রাখেন৷
উল্লেখ্য যে, সমাজকর্ম বিভাগের আয়োজনে উক্ত ওয়েবিনারটি সঞ্চালনা করেন একই বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ড. বুশরা জামান। ওয়েবিনারে সমাজকর্ম বিভাগের শিক্ষক অধ্যাপক মোস্তুফা হাসান, শরিফুল ইসলাম, শহিদুল হক, পার্থ সারথি মোহন্থ, মনোবিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক নুর মোহাম্মদ সহ অন্যান্য বিভাগের চেয়ারম্যান, শিক্ষক ও শিক্ষার্থী অনেকে উপস্থিত ছিলেন।
Print Friendly, PDF & Email

     এ ক্যাটাগরীর আরো খবর