,

1

মিঠামইনে ৭০ শতাংশ ভর্তূকিতে কম্বাইন হার্ভেস্টার বিতরণ,দুর্ভোগ কমছে কৃষকের

হাওর বার্তা ডেস্কঃ হাওর এলাকায় জমিতে অধিক ফলন ও উৎপাদন খরচ কমানোর লক্ষ্যে ৭০ শতাংশ ভর্তূকি মূল্যে কৃষকদের মাঝে কম্বাইন হার্ভেস্টার বিতরণ করেছেন কিশোরগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য রেজওয়ান আহাম্মদ তৌফিক।
আধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহার বৃদ্ধি পাওয়ায় দেশ যেমন উন্নতির দিকে এগিয়ে যাচ্ছে; তেমনি কৃষি শ্রমিকের সংকটের কারণে প্রায় প্রতি মৌসুমেই কৃষকদের ধান কাটা নিয়ে বিপাকে পড়তে হচ্ছে। শ্রমিক সংকটের কারণে ধান কাটার উপযোগী হওয়ার পরেও কৃষকেরা যথাসময়ে ফসল ঘরে তুলতে পারেন না। ফলে অনেক সময় কৃষকদের ক্ষতির সম্মুখীন হতে হয়। তবে আধুনিক কৃষি যন্ত্র ব্যবহার করলে কৃষকেরা এ বিড়ম্বনা থেকে রক্ষা পেতে পারেন। এমন একটি আধুনিক কৃষি যন্ত্র হলো কম্বাইন হার্ভেস্টার।
আধুনিক প্রযুক্তির কল্যাণে ধান ও গম কাটা ও মাড়াইয়ের অত্যাধুনিক যন্ত্র কম্বাইন হার্ভেস্টার কৃষকদের দোড়গোড়ায় চলে এসেছে। এ যন্ত্রের সাহায্যে একসঙ্গে ধান কাটা, মাড়াই, ঝাড়াই ও বস্তাবন্দি করা সম্ভব হচ্ছে। ফলে কৃষকের উৎপাদন খরচ ৬০ থেকে ৭০ শতাংশ কমে আসছে।
এ লক্ষ্যে বুধবার (৭ এপ্রিল) দুপুরে মিঠামইন উপজেলার ৩ জন কৃষকের মাঝে একটি করে ৩টি কম্বাইন হার্ভেস্টার মেশিনের চাবি ও কাগজপত্রাদি তুলে দেন। কিশোরগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য রেজওয়ান আহাম্মদ তৌফিক।
সরকারি নির্দেশনা মোতাবেক সকল প্রকার স্বাস্থ্যবিধি মেনে ও সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে এ বিতরণ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন মিঠামইন উপজেলা নির্বাহী অফিসার প্রভাংশু সোম মহান,উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ মো. রাফিউল ইসলাম।
উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ মো. রাফিউল ইসলাম বলেন, আগ্রহের সঙ্গে আবেদন করা কৃষকদের মধ্য থেকে ৩টি মেশিন বিতরণ করা হয়েছে,বাকি আরো ৭ টি হারভেস্টার মেশিন হস্তান্তর করা হবে। তিনি জানান, বিতরণকৃত প্রতিটি কম্বাইন হারভেস্টার মেশিনের বাজার মূল্য ২৮ লাখ থেকে ৩০ লাখ টাকা। প্রতিটি কম্বাইন হার্ভেস্টার মেশিনে সরকার সর্বোচ্চ ১৮ লাখ টাকা ভর্তুকি প্রদান করছে। এ যন্ত্র দিয়ে একই সঙ্গে দৈনিক প্রায় ৮ একর থেকে ১০ একর জমির ধান ও গম কাটা, মাড়াই, ঝাড়াই ও বস্তাবন্দি করা যায়। ফলে কৃষকের উৎপাদন খরচ ও সময় অনেক কম লাগে।
তিনি জানান, অল্প সময়ে সহজেই ধান কাটার এই প্রযুক্তি হাতের নাগালে পেয়ে কৃষক ও কৃষাণীরা খুব খুশি হয়েছেন। করোনার কারণে একদিকে শ্রমিক সংকট। অন্যদিকে বর্ষার আশঙ্কা। তাই জমিতে পানি জমার আগেই ধান ঘরে তুলার সুবিধার্থে এসকল হার্ভেস্টার মেশিন কৃষকদের প্রদান করা হয়।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার
প্রভাংশু সোম মহান বলেন,আধুনিক প্রযুক্তি গ্রহণ করে তা ব্যবহারের মাধ্যমে নিজেদের ভাগ্যের উন্নয়নের পাশাপাশি দেশকেও এগিয়ে নিতে ভূমিকা রাখতে জনগণকে সচেতন হতে হবে।

কিশোরগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য রেজওয়ান আহাম্মদ তৌফিক বলেন, দেশের জনসংখ্যা বাড়ার সঙ্গে কমছে কৃষিজমি। তাই উৎপাদন খরচ কমিয়ে অধিক ফলনের জন্য প্রয়োজন কৃষিজমিতে উন্নত প্রযুুক্তির ব্যবহার। এতে জমির সর্বোত্তম ব্যবহার নিশ্চিতের পাশাপাশি কৃষকেরা লাভবান হবেন। ধান কাটা ও মাড়াইয়ে আধুনিক যন্ত্র কম্বাইন হার্ভেস্টার ব্যবহার করলে কৃষকদের দুর্ভোগে পড়তে হবে না। কৃষকদের দুর্ভোগ থেকে রক্ষা করতে খামার যান্ত্রিকরণের ওপর জোর দিচ্ছে সরকার।

Print Friendly, PDF & Email

     এ ক্যাটাগরীর আরো খবর