,

14

শ্রদ্ধা আর ফুলে ফুলে ভরে উঠেছে বঙ্গবন্ধুর সমাধি

হাওর বার্তা ডেস্কঃ এ যেন ফুলের পাহাড়। পাহাড় বললেও ভুল বলা হবে। যেন ভালবাস আর শ্রদ্ধার স্তুপ। হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গালী জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি অকুণ্ঠ ভালবাসা। যাতে নেই কোন খাদ, শুধুই খাটি সোনা।  গোপালগঞ্জসহ আশপাশের জেলা আসা হাজার হাজার বঙ্গবন্ধু প্রেমী তাদের প্রিয় নেতার সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য সকাল থেকে সমাধি সৌধ কমপ্লেক্সের আশেপাশে ভীড় করেন। অশ্রু সিক্ত নয়নে বঙ্গবন্ধুর সমাধি সৌধ বেদীতে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে বঙ্গবন্ধুর পলাতক খুনিদের দেশে ফিরিয়ে এনে বিচারের দাবী জানালেন বঙ্গবন্ধু প্রেমীরা।
জানাগেছে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার শ্রদ্ধা নিবেদন শেষ বঙ্গবন্ধুর সমাধি সৌধ কমপ্লেক্স ত্যাগের পর সর্বসাধরনের জন্য খুলে দেয়া হয় সমাধি সৌধের তিনটি গেট। এর কয়েক মূহূর্তের ভরে ওঠে বঙ্গবন্ধু প্রেমীদের। যেন বাঁধ ভাঙ্গা জোয়ারের মতো প্রবেশ করতে থাকে। যে যার মতো করে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন ৭৫’র ১৫ আগষ্ট ঘাতকদের বুলেটে নিহত জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি। বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষেও বঙ্গবন্ধুর সমাধি সৌধের বেদীতেও পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়। মুহুর্তের মধ্যে ফুলে ফুলে ভরে ওঠে বঙ্গবন্ধুর সমাধি সৌধ বেদী। জাতির এ শ্রেষ্ঠ সন্তানের কবর জিয়ারত ও শ্রদ্ধা জানাতে পেরে তারা খুশি। তাদের কাছে এ যেন অনেক বড় পাওয়া।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৪-তম শাহাদত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে টুঙ্গিপাড়াসহ পুরো গোপালগঞ্জ জুড়ে শোকের আবহ সৃষ্টি হয়। টুঙ্গিপাড়ার বাড়িতে বাড়িতে ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে উড়ানো হয়েছে কালো পতাকা। কালো ব্যাচ ধারণ করেছেন বঙ্গবন্ধুপ্রেমীরা। ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের গোপালগঞ্জের সীমানা মুকসুদপুর থেকে টুঙ্গিপাড়া বঙ্গবন্ধু সমাধীস্থল পর্যন্ত পাঁচ শতাধিক কালো-কাপড়ে মোড়া তোরণ নির্মাণ করা হয়েছে। জেলার বিভিন্ন উপজেলা সদর, বিভিন্ন ইউনিযন ও গ্রামে গ্রামে কাঙালি ভোজের আয়োজন করা হয়। মাইকে বাজানো হয় বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ ও বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে লেখা গান।

Print Friendly, PDF & Email

     এ ক্যাটাগরীর আরো খবর