,

download (3)

শরীরের জন্য ভালো পান্তা ভাত

হাওর বার্তা ডেস্কঃ পান্তা ভাত আবহমান মাছে-ভাতে বাঙালি জীবনের অন্যতম অনুষঙ্গ। বিশেষ করে গ্রামবাংলার মানুষের কাছে একসময় সকালের অন্যতম প্রিয় খাবার ছিল এটি। সাম্প্রতিক কয়েক দশকে রাজধানীসহ বড় শহরে বিশেষ করে বাংলা নববর্ষের সময় পান্তা খাওয়ার চল হয়েছে। তবে পান্তা ভাত খাওয়ার স্বাস্থ্যগত দিকটি সম্পর্কে অনেকেরই কিছু জানা নেই।

শরীরের জন্য পান্তা ভাত আদতে কতটা ভালো বা খারাপ, তা খুঁজে বের করতে গবেষণায় নেমেছিলেন পূর্ব ভারতের আসাম কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা। ওই গবেষণার ফল প্রকাশিত হয়েছে এশিয়ান জার্নাল অব কেমিস্ট্রিতে। গবেষণাটিতে নেতৃত্ব দিয়েছেন অধ্যাপক মধুমিতা বড়ুয়া।

মধুমিতা বড়ুয়া জানিয়েছেন, ১০ থেকে ১২ ঘণ্টা ভাত পানিতে ভিজিয়ে রেখে দেওয়ার ফলে দুটির মধ্যে এক ধরনের রাসায়নিক বিক্রিয়া হয়। পানির কারণে ভাতের গাজন প্রক্রিয়ার গতি দ্রুত হয়। ভাতের মধ্যে থাকা শর্করা ভেঙে যায়।

পান্তা ভাতে নানা ধরনের পুষ্টিকর খনিজ পদার্থের উপস্থিতির বিষয়টি গবেষণায় উঠে এসেছে। এ ধরনের খনিজ পদার্থ হচ্ছে আয়রন, ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম, পটাসিয়াম, জিংক, ফসফরাস ও ভিটামিন ‘বি’।

মধুমিতা বড়ুয়া জানান, সাধারণ ভাতের চেয়ে পান্তা ভাতে পুষ্টির পরিমাণ বেশি থাকে। যেমন ১০০ মিলিগ্রাম সাধারণ ভাতে আয়রন থাকে ৩.৫ মিলিগ্রাম। কিন্তু ১২ ঘণ্টা ভিজিয়ে রাখা ভাতে এর পরিমাণ গিয়ে দাঁড়ায় ৭৩.৯ মিলিগ্রামে।

গবেষণায় দেখা গেছে, পান্তা ভাতে ক্যালসিয়াম, পটাসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম ও জিংকের উপস্থিতিও অনেক বেড়ে যায়।

বিজ্ঞানীদের তথ্য অনুসারে, পান্তা ভাতের পুষ্টিকর উপাদানগুলো শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা শক্তিশালী করে।

Print Friendly, PDF & Email

     এ ক্যাটাগরীর আরো খবর