,

নারীর যৌনাকাঙ্ক্ষা নির্ভর করে মেজাজের উপর

কথিত আছে, নারীরা শুক্র ও পুরুষরা মঙ্গল গ্রহ থেকে এসেছে। কিন্তু যৌনতাবিষয়ক নতুন একটি যৌন জরিপের বরাতে ব্রিটিশ পত্রিকা দ্য ইন্ডিপেন্ডেন্ট জানায়, বিপরীত লিঙ্গের মানুষেরা ভিন্ন ভিন্ন সময়ে যৌনসম্পর্কে লিপ্ত হতে পছন্দ করে। জরিপে দেখা যায়, নারীরা গড়ে রাত ১১ টা ২১ এর মধ্যেই তাদের দৈহিক চাহিদা মিটিয়ে ফেলতে চায়। আর পুরুষরা খানিকটা অসুবিধাজনক সময়ে অর্থাৎ সকাল ৭ টা ৫৪ এর দিকে যৌনাকাঙ্ক্ষা জাগে। নারীদের ক্ষেত্রে এ সময়ের ব্যাপ্তিটি সাধারণত রাত ১১টা থেকে ২টা পর্যন্ত আর পুরুষদের ক্ষেত্রে তা সকাল ৬টা থেকে ৯টা পর্যন্ত।

জরিপে আরো দেখা যায়, সারাদিনের কর্মব্যস্ততায় দেহে অবসাদ আসার কারণে মাত্র ১৬% পুরুষ রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে যৌনকর্মে লিপ্ত হতে চায়। প্রায় ২৩০০ প্রাপ্তবয়স্কদের উপর সেক্স টয় লাভহানি নামে একটি প্রতিষ্ঠান এই জরিপটি চালায়। এতে উঠে এসেছে যে, শতকরা ৬৩ ও ৬৮ ভাগ নারী-পুরুষ যৌনসম্পর্ক করার সময় তাদের বিপরীত লিঙ্গের কাছ থেকে তেমন তৃপ্তি পাননি। তাদের ভেতরে পর্যাপ্ত যৌনশক্তির অভাব ছিল।

জরিপের ফলাফলে দেখা যায়, শতকরা ৫০ ভাগের মত নারীর মতে, তারা এবং তাদের সঙ্গীরা একই পরিমাণ যৌনশক্তি চান। গবেষণাটিতে পুরুষ এবং নারীর যৌনশক্তির ভিন্নতা প্রকাশ পেয়েছে। গবেষণায় অর্ধেকের বেশি পুরুষ জানিয়েছেন যে তাদের যৌন বাসনা ধ্রুব সেখানে শতকরা ৩৬ ভাগ নারী জানিয়েছেন, যৌন বাসনা তাদের মেজাজের উপর নির্ভর করে।

লাভহানি’র সহ-প্রধান রিচার্ড লংহার্স্ট বলেন, ‘এই গবেষণাটি প্রমাণ করে যে, যৌনতা আর যৌনক্রিয়ার সময়ের মধ্যে একটি বড় ধরনের পার্থক্য আছে।’ তিনি আরো বলেন, ‘পুরুষরা সকালের নাস্তা সারার আগেই যৌনসম্পর্কে লিপ্ত হতে চান। আর নারীরা এটি রাতে করতে আগ্রহী। উৎসাহব্যঞ্জক ব্যাপার হলো, বেশিরভাগ নারী-পুরুষই তাদের অনুরূপ চাহিদার মানুষের সঙ্গে যৌনসুখ খুঁজে পেতে চায়।’

Print Friendly, PDF & Email

     এ ক্যাটাগরীর আরো খবর