,

জোয়ারে তলিয়ে ছিল বর-কনের বাড়ি, মাদরাসায় বিয়ে

হাওর বার্তা ডেস্কঃ দুবাইপ্রবাসী রাকিব হাওলাদারের বিয়ের দিন-তারিখ ঠিক ছিল আগেই। কিন্তু বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট নিম্নচাপ বাগড়া দেয় বিয়েতে। জোয়ারের পানিতে তলিয়ে যায় বর-কনের বাড়ি। ফলে পাশের একটি মাদরাসায় বিয়ের আয়োজন করেন স্বজনরা।

বুধবার (১৪ সেপ্টেম্বর) দুপুরে বরিশালের বাবুগঞ্জ উপজেলার চাঁদপাশা ইউনিয়নের বকশিরচর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় ও স্বজনরা জানান, প্রতিবেশী আনোয়ার হোসেনের মেয়ে ফাতিমা আক্তারের সঙ্গে বিয়ে ঠিক হয় রাকিব হাওলাদারের। জোয়ারের কারণে বকশিরচর এলাকার যাতায়াতের পথসহ বেশিরভাগ এলাকা তলিয়ে যায়। তবে বৃষ্টি বা জোয়ারের পানি কোনো কিছুই বাধা হয়ে দাঁড়াতে পারেনি রাকিব-ফাতিমার বিয়ের আনুষ্ঠানিকতায়। হাঁটুপানি ভেঙে অতিথিরা আসেন। তবে বিপাকে পড়েন বরযাত্রীরা। বাধ্য হয়ে পানিতে তলিয়ে যাওয়া রাস্তা দিয়ে বর-কনেকে ভ্যানে করে যেতে হয়।

কনের বাবা আনোয়ার হোসেন বলেন, ফাতিমা আমার আদরের ছোট মেয়ে। ধুমধাম করে বিয়ের আয়োজন করার কথা ছিল। সেভাবে প্রস্তুতি নিয়েছিলাম। আত্মীয়-স্বজন ও শুভাকাঙ্ক্ষীসহ তিন শতাধিক অতিথিকে নিমন্ত্রণ করা হয়েছিল। কিন্তু বাধসাধে বৃষ্টি-জোয়ারের পানি। পানিতে তলিয়ে ছিল আমার বাড়ির উঠানসহ আশপাশের এলাকা। তাই পাশের চাঁদপাশা মহিলা দাখিল মাদরাসায় অতিথি আপ্যায়নের ব্যবস্থা করতে হয়েছে।

তিনি বলেন, বকশিরচর এলাকাটা নিচু। বর্ষা মৌসুমে জোয়ারের পানি বেশি বৃদ্ধি পেলে যাতায়াতের পথসহ বেশিরভাগ এলাকা তলিয়ে যায়। বন্ধ হয়ে যায় যানবাহন চলাচল। এ কারণে এ এলাকার মানুষকে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।

বরের বাবা কালাম হাওলাদার বলেন, রাকিব আমার বড় ছেলে। গায়ে হলুদসহ বিয়ের অনুষ্ঠান জাঁকজমকপূর্ণ আয়োজনে করার জন্য আত্মীয়-স্বজনরা বলে রেখেছিল। কিন্তু জোয়ারের পানি ও কয়েক দিনের বৃষ্টি সবকিছুতেই ব্যাঘাত ঘটালো। তবে শেষ পর্যন্ত বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা কোনো সমস্যা ছাড়াই সম্পন্ন হয়েছে।

বরিশাল আবহাওয়া অফিসের পর্যবেক্ষক হুমায়ুন কবির জানান, বঙ্গোপসাগরে সৃষ্টি নিম্নচাপটি সুস্পষ্ট লঘুচাপে পরিণত হয়েছে। সেটি ভারতের মধ্যপ্রদেশের মধ্যাঞ্চল ও তৎসংলগ্ন এলাকায় বিরাজমান। এর প্রভাবে উত্তর বঙ্গোপসাগর ও এর কাছাকাছি বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকায় গভীর সঞ্চরণশীল মেঘমালার সৃষ্টি অব্যাহত রয়েছে। এর প্রভাবে বরিশালসহ দেশের বিভিন্নস্থানে বৃষ্টি হচ্ছে।

গত চারদিনে (শনিবার থেকে বুধবার) বরিশালে ১৫১ দশমিক ২ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। তবে গত চারদিনের তুলনায় বৃষ্টি অনেক কম হয়েছে। বৃহস্পতিবার বৃষ্টি আরও কমবে।

Print Friendly, PDF & Email

     এ ক্যাটাগরীর আরো খবর