,

image-579989-1659482803

সেই পদ্মা ও সেতুর নাম পরিবর্তন করেছে পরিবার

হাওর বার্তা ডেস্কঃ স্বপ্নের পদ্মা সেতু উদ্বোধনের সময় ঘনিয়ে আসার প্রাক্কালে অনেকেই একের অধিক ভূমিষ্ঠ হওয়া সন্তানের নাম রাখেন সেতুর সঙ্গে মিল রেখে।

তেমনি গত ২১ জুন জেলার বরুড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে জন্ম নেওয়া দুই যমজ শিশুর নাম রাখা হয় পদ্মা ও সেতু।

তবে এ যমজের বয়স সপ্তাহ না হতেই তাদের নাম পরিবর্তন করেছে পরিবার। পদ্মা ও সেতুর নাম পাল্টে যথাক্রমে উম্মে হানি আয়েশা ও আরোহী আঁখি রাখা হয়েছে। যমজদের বাবা সোহাগ নাম দুটি রেখেছেন।

মঙ্গলবার দুপুরে গণমাধ্যমকে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন যমজ শিশুর দাদা শুকুর আলী।

তিনি বলেন, জন্ম নেওয়ার পর বরুড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. কামরুল হাসান সোহেল দুই শিশুর নাম রাখেন পদ্মা ও সেতু। পরে হাসপাতালে থেকে ছাড়পত্র পেয়ে বাড়িতে যাই। জন্মের ছয় দিন পর গত ২৭ জুন ওই দুই শিশুর নাম পরিবর্তন করে উম্মে হানি আয়শা ও আরোহী আঁখি রাখা হয়েছে।

নাম পরিবর্তন করার কারণ জানাতে শিশুদের দাদা শুকুর আলী বলেন, এলাকার মানুষ বিষয়টি ভালোভাবে নেয়নি। এলাকা থেকে ইসলামিক নাম রাখার জন্য বলা হয়। পরে তাদের বাবা সোহাগের পছন্দে দুজনের নাম উম্মে হানি আয়শা ও আরোহী আঁখি রাখা হয়।

উল্লেখ্য, পদ্মা সেতুর নামে নাম রাখায় সে সময় আলোচনা আসে এই দুই যমজ। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের পক্ষ থেকে নবজাতকদের উপহারসামগ্রী দেওয়া হয়।

তাদের চিকিৎসা সুবিধাসহ চিকিৎসা সংক্রান্ত সব ধরনের সুবিধা নিশ্চিত করা হবে বলে জানিয়েছিলেন বরুড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা কামরুল হোসেন সোহেল।

যদিও যমজ দুই শিশুর দাদার অভিযোগ, হাসপাতাল থেকে তাদের সবসময় খোঁজ-খবর রাখার কথা থাকলেও আসার পর কেউই খোঁজ রাখেননি। কয়েকদিন আগেও ওষুধ বাজার থেকে নিজ টাকায় কিনতে হয়েছে তাদের।

এ বিষয়ে ডা. কামরুল হাসান সোহেল বলেন, শিশু দুটির নাম তাদের পরিবারের লোকজনের সম্মতিতে পদ্মা ও সেতু রাখা হয়। পরে তারা কেন নাম পরিবর্তন করেছে বিষয়টি আমার জানা নেই। এছাড়া বিষয়টি তাদের ব্যক্তিগত।

Print Friendly, PDF & Email

     এ ক্যাটাগরীর আরো খবর