,

Mymensingh-Cucumber

৫ টাকায় ব্যাগভর্তি শসা

হাওর বার্তা ডেস্কঃ গাইবান্ধার বাজারে পলিথিনের এক ব্যাগ শসা বিক্রি হচ্ছে মাত্র ৫ টাকায়। মধ্যসত্বভোগীদের কারণে ভালো জাতের শসাও বিক্রি হচ্ছে ২ থেকে ৩ টাকা কেজিতে।

অন্যদিকে প্রতি হাটবারে ২০ থেকে ২৫ ট্রাক শসা যাচ্ছে ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন হাট বাজারে। কিন্তু বাজারদর ভালো না পাওয়ায় এ বছর লাভ তো দুরের, ব্যাপক লোকসান গুনতে হচ্ছে গাইবান্ধার শ শ চাষিকে ।

গাইবান্ধার কৃষি বিভাগ জানায়,এবার গাইবান্ধা জেলার সাঘাটা, ফুলছড়ি, সুন্দরগঞ্জ, গাইবান্ধা সদর, পলাশবাড়ি, গোবিন্দগঞ্জ ও সাদুল্লাপুর উপজেলায় ব্যাপকভাবে শসার চাষ হয়ে থাকে। চলতি মৌসুমে গাইবান্ধায় প্রায় ৩শ হেক্টর জমিতে শসার চাষ হয়েছে।

সাদুল্লাপুরের খামারপাড়া গ্রামের চাষি আব্দুল ওয়ারেস জানান, সাদুল্লাপুর উপজেলার ধাপেরহাট, ইদিলপুর, ভাতগ্রাম, খোর্দ্দকোমরপুর, ফরিদপুরসহ কয়েকটি ইউনিয়নে শসা চাষির সংখ্যা বেশি।  এলাকার হাট বাজারে চাহিদা মিটিয়েও প্রতি বছর শসা দেশের হাটবাজার দখল করে। প্রতি বছর দামও ভালো ছিলো।  এবারও লাভের আশায় অনেক চাষি শসা আবাদের দিকে ঝুঁকে পড়ে। ফি বছর তেল সার কীটনাশক কামলা খরচ দিয়েও লাভের টাকায় অনেক কৃষক স্বাবলম্বী হয়েছে। কিন্তু এবার হয়েছে তার উল্টো।

ধাপেরহাট ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শফিকুল কবীর মিন্টু বলেন, ধাপেরহাট বসে সপ্তাহে দুই দিন। সোমবার ও বৃহস্পতিবার। প্রচুর সবজির সাথে শসায় হাট ভরে যায়। এই দুই হাটকে কেন্দ্র করে ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে ব্যাপারীরা আসেন ট্রাক নিয়ে কাঁচামাল কিনতে।

তিলকপাড়ার চাষি মাসুদার রহমান মিনু জানান, তিনি এবার শসা চাষ করে খরচ তো তুলতেই পারেননি বরং শসা নিয়ে আরো বিপাকে পড়েছেন।

ধাপেরহাটের ইজারাদার লুৎফর রহমান লতিফ জানান, উৎপাদন ভালো হওয়ায় প্রতি হাটে বিপুল পরিমান শসা হাটে স্তুপ করে রাখা হয় বিক্রির জন্য। প্রতি বছর দাম ভালো পেয়ে চাষিরা লাভবান হলেও এবার হয়েছে উল্টো ।
ব্যাপারীরা সুযোগ বুঝে কম দামে কৃষকদের কাছে কিনে নেয়।

ঢাকা থেকে প্রতি হাটে শসা কিনতে আসেন হাসেন আলী সরদার। তিনি অন্তত ৪ ট্রাক শসা কিনে নিয়ে যান। এবার শসা পাইকারি দামে মণ হিসাবে বিক্রি হচ্ছে ৮০ থেকে ১ শ টাকায়। তিনি শসা নিয়েছেন ৫ ট্রাক। দামও সস্তা । প্রতি কেজি শসার দাম ২ থেকে ৩ টাকা।

কয়েকদিন ধরে গাইবান্ধার বাজারে পলিথিনের ব্যাগ হাতে বিক্রেতারা হাঁক দিচ্ছেন ব্যাগভর্তি শসা ৫ টাকা ।

গাইবান্ধা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক বেলাল হোসেন জানান, সাদুল্লাপুর উপজেলায় এবার শসার উৎপাদন ভালো হয়েছে। প্রথম দিকে কৃষকরা ভালো দাম পেলেও-এখন বাজার মন্দা।

Print Friendly, PDF & Email

     এ ক্যাটাগরীর আরো খবর