,

cea6cc5464b3710f53eae7dbe83ca68bb3bd35c6a4af3926

টাঙ্গাইলে রেললাইনের পাশ থেকে যুবকের মরদেহ উদ্ধার করেছে

হাওর বার্তা ডেস্কঃ টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলার ধলাটেঙ্গর রেললাইনের পাশ থেকে গোবিন্দ চন্দ্র আর্য্য (৪২) নামের এক যুবকের রক্তাক্ত মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (১২ এপ্রিল) সকালে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়। পরিবারের দাবি, তাকে হত্যা করে রেললাইনের পাশে ফেলে রাখা হয়েছিল।

সোমবার (১১ এপ্রিল) সন্ধ্যায় বাড়ি থেকে বের হওয়ার পর থেকে নিখোঁজ হন গোবিন্দ চন্দ্র।

নিহত গোবিন্দ চন্দ্র আর্য উপজেলার নারান্দিয়া ইউনিয়নের নগরবাড়ি গ্রামের সুভাষ চন্দ্র আর্য্যর ছেলে। তিনি একটি ওষুধ কোম্পানির বিক্রয় প্রতিনিধি হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

গোবিন্দের চাচাতো ভাই আপন আর্য্যর ভাষ্যমতে, সোমবার বিকেলে গোবিন্দ ও কয়েকজন স্বজন তার বাসায় খাওয়া-দাওয়া করেন। পরে সন্ধ্যায় সবাইকে বিদায় দিয়ে গোবিন্দ কালিহাতী যাওয়ার উদ্দেশ্যে বের হয়ে যান। এরপর থেকে তার আর কোনো খোঁজ পাওয়া যাচ্ছিল না। মঙ্গলবার সকালে স্থানীয়দের কাছ থেকে খবর পেয়ে তিনি জানতে পারেন রেললাইনের পাশে গোবিন্দের মরদেহ পড়ে রয়েছে।

পরে সেখানে গিয়ে হাত-পা ভাঙা অবস্থায় তার মরদেহ পড়ে থাকতে দেখা যায়। তার পেটে ধারালো অস্ত্রের আঘাত রয়েছে। তার ধারণা, কেউ তাকে হত্যা করে মরদেহ রেললাইনের পাশে ফেলে রেখে গেছেন।

উপজেলার নারান্দিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মাসুদ তালুকদার জানান, সোমবার সন্ধ্যা থেকে গোবিন্দ নিখোঁজ ছিলেন বলে জানা গেছে। সকালে রেললাইনের ব্রিজের পাশ থেকে তার মরদেহ পাওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

কালিহাতী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জানান, মরদেহটি রেললাইনের পাশে থাকায় বিষয়টি রেলওয়ে পুলিশ দেখবে।

এ বিষয়ে রেলওয়ে পুলিশের টাঙ্গাইল ফাঁড়ির ইনচার্জ সাইফুল ইসলাম বলেন, মরদেহের মাথায় ও শরীরে আঘাতের একাধিক চিহ্ন রয়েছে। হাত-পা ভাঙা। মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email

     এ ক্যাটাগরীর আরো খবর