,

lady-biker-1-2111100654-2111101422

সিলেটের আলোচিত লেডি বাইকার রিয়া এখন মাদক রানী!

লেডি বাইকার রিয়া রায়। সমাজের গতানুগতিক বেড়া ভেঙ্গে নেমেছিলেন অন্যভাবে রাস্তায়। তার চলাফেরা ছড়িয়ে পড়েছিল নেট দুনিয়ায়। গোয়ালের বাঁধা গরু যেভাবে ছাড়া পেলে দিকবিদিক হয়ে পড়ে, তেমনটিই ঘটেছে রিয়া রায়ের জীবনে। ঝলমল দুনিয়াই তাকে নিয়ন্ত্রন করেছে, পারেননি নিজকে সামলে রাখতে। নিজে কেবল দেহ মন রাখেননি মোটর বাইকে অন্যদের উৎসাহ দিতে শুরু করেছিলেন। কিন্তু তার ডাকে অন্যরা আসতে না আসতে তিনি পা দিলেন নিষিদ্ধ মাদক দুনিয়ায়। এখন তার পরিচিতি মাদক রানী। আলোচিত এ লেডি বাইকার রিয়া রায় এখন মাদক মামলায় পলাতক। আগাম জামিন চেয়ে হাইকোর্টে আবেদন করেছে তার আইনীবি। তার পক্ষে ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন উচ্চ আদালতে শুনানি করবেন। আজ মঙ্গলবার (৩০ নভেম্বর) ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন বলেন, হাইকোর্টের একটি ফৌজদারি বেঞ্চে লেডি বাইকার রিয়া রায়ের জামিন আবেদন করেছি। তার পক্ষে নিজেই শুনানি করব আমি। স্মার্ট ও সুদর্শনা এ তরুণীর অস্বাভাবিক চলাফেরায় সর্তক চোখ ছিল আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের। সেকারনে মাদকের নেটওয়ার্কে জড়িয়ে পড়ার খবর পৌছে আইনশৃংখলা বাহিনীর নজরে। সিলেটের রাস্তায় নিয়ন্ত্রণহীন অবস্থায় চালাতেন মোটরসাইকেল। এছাড়া বিমানবন্দর সড়কে দিন-রাত যেকোন সময় যাতায়াত ছিলো তার। যার কারণে উঠতি বয়সী তরুণ ছাড়াও অনেকের নজর কাড়েন রিয়া। সেই রিয়া এখন পলাতক। তার কাঁধে মাদকের মামলা। পুলিশ হন্যে হয়ে খুঁজলেও পাচ্ছে না তাকে। তবে রিয়ার বয়ফ্রেন্ড ছামি মাদকের মামলায় গ্রেফতার হয়ে কারান্তরীণ রয়েছে। রিয়ার মাদক জগতের ঘটনা জানাজানি হওয়ার পর তার কর্মকান্ড নিয়ে তোলপাড় চলছে। তাকে নিয়ে নানা জল্পনা হচ্ছে নগরীর কুমারপাড়া ঝরনার পাড় এলাকায়ও। পুলিশের তথ্যমতে, চলতি মাসের ৭ নভেম্বর সিলেট নগরীর এয়ারপোর্ট এলাকা থেকে মাদকসহ গ্রেফতার হন রিয়ার প্রেমিক। ওই ঘটনায় আরমান সামীকে প্রধান আসামি করে রিয়াসহ দুই জনের বিরুদ্ধে মাদক দ্রব্য আইনে মামলা করে সিলেট বিমানবন্দর থানা পুলিশ। মামলার এজাহারে বলা হয়, ৫০০ গ্রাম মদ, ১০ পিস ইয়াবা ও দুই প্যাকেট গাঁজাসহ গ্রেফতার করার পর প্রেমিক সামী জানায় তার সঙ্গে লেডি বাইকার রিয়াও ছিল। কৌশলে সে পালিয়ে গেছে। সামীর মা-বাবা বলেন, টিকটকে একসঙ্গে ভিডিও তৈরি করত সামী ও রিয়া। সেখান থেকেই বন্ধুত্ব, তারপর প্রেম। তবে রিয়া হিন্দু ধর্মের এজন্য সামীকে প্রেমের সম্পর্ক ভেঙে দেওয়ার পরামর্শ দিয়েছিল পরিবার। সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের তদন্ত কর্মকর্তা পলাশ চন্দ্র দাশ জানান, রিয়াকে গ্রেফতার করার জন্য পুলিশের একাধিক টিম মাঠে কাজ করছে। বর্তমানে জেলে আছেন রিয়ার প্রেমিক আরমান সামী। প্রেমিক আরমান সামীর মা-বাবার দাবি, লেডি বাইকার রিয়া প্রেমের ফাঁদে ফেলে মাদক দিয়ে গ্রেফতার করিয়েছে তাদের ছেলেকে। অপরদিকে রিয়ার পরিবারের অভিযোগ, মিথ্যা প্রেমের সম্পর্ক তৈরি করে ফাঁসানো হয়েছে তাদের মেয়েকে। পুলিশ বলছে, মামলার তদন্ত শেষ হলে জানা যাবে বিস্তারিত। রিয়া রায় নিজেকে সিলেটের ফার্স্ট লেডি বাইকার হিসেবে দাবি করেন। মাথায় হেলমেট, চোখে রঙিন চশমা পরে বিলাসবহুল মোটরসাইকেল নিয়ে সিলেট নগরীর অলিগলিসহ রাজপথে দেখা মিলত তার। এছাড়া ফেসবুক, ইউটিউব, টিকটক, ইনস্টাগ্রামে রিয়ার জনপ্রিয়তা রয়েছে। এজন্য খুব অল্প সময়ের ব্যবধানে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ব্যাপক পরিচিতি পান রিয়া। কিন্তু দামী বাইক, বেপরোয়া জীবনের পেছেন কার হাত রয়েছে তাও অনুসন্ধানের দাবী অনেকের।

Print Friendly, PDF & Email

     এ ক্যাটাগরীর আরো খবর