,

104926cop_kalerkantho_pic

মোবাইলে ডিভোর্স দেয়ার কথা বলায় শিশুকে গলাকেটে হত্যা করলেন মা!

হাওর বার্তা ডেস্কঃ লক্ষ্মীপুরে ঘটেছে এক মর্মান্তিক ঘটনা। আয়ানুর রহমান আয়ান নামে সাড়ে ৩ বছর বয়সী এক শিশুকে গলাকেটে হত্যা করা হয়েছে। এই অভিযোগে অভিযুক্ত মা সাবিনা ইয়াসমিনকে (২৫) আটক করেছে স্থানীয় পুলিশ। মায়ের হাতে নির্মমভাবে শিশু হত্যার ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গতকাল রবিবার দিবাগত রাতে সদর উপজেলার লাহারকান্দি ইউনিয়নের পূর্ব চাঁদখালী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এই অভিযোগে অভিযুক্ত মা সাবিনা ইয়াসমিনকে (২৫) আটক করেছে স্থানীয় পুলিশ। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন লক্ষ্মীপুর মডেল থানার ওসি জসিম উদ্দিন।

জানা গেছে, নিহত শিশু সৌদী প্রবাসী আজিমুর রহমানের ছেলে। তাদের বাড়ি সদর উপজেলার তেওয়ারীগঞ্জ ইউনিয়নের হোসেনপুর গ্রামে। চাঁদখালী গ্রামের ওই বাড়িতে তারা ভাড়া থাকতো। ওই বাড়ির বাসিন্দা রাসেল খাঁ জানান, প্রবাসী স্বামী আজিমুর রহমানের সঙ্গে সাবিনা ইয়াসমিনের মোবাইলফোনে ঝগড়া হয়। রাতে সে শিশুপুত্রকে নিয়ে শুতে যায়। রাত পৌনে ১২টার দিকে সে তার ঘুমন্ত শিশুকে ধারালো বটি দিয়ে জবাই করে হত্যা করে। ঘরের অন্য লোকজন শব্দ শুনে তার কক্ষে গিয়ে শিশুর লাশ ও তার মাকে রক্তমাখা বটি হাতে দেখতে পায়। পরে বাড়ির লোকজন তাকে আটক করে পুলিশে খবর দেয়।

ওসি জসিম উদ্দিন বলেন, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে অভিযুক্ত মা সাবিনা জানিয়েছেন শিশুপুত্রকে গলা কেটে হত্যা করেছেন। শিশুটির মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। রক্তমাখা বটি জব্দ করে শিশুটির মা সাবিনা ইসয়াছমিনকে পুলিশি হেফাজতে নেওয়া হয়েছে। তার প্রবাসী স্বামী তাকে মোবাইল ডিভোর্স দেওয়ার কথা বলেছে। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে তিনি এ জঘন্য ঘটনা ঘটিয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে জানতে পেরেছি।

স্থানীয় ইউপি সদস্য মো. মোজাম্মেল হোসেন মোহাব্বত বলেন, ঘাতক নারী তার ছেলেকে নিয়ে আলাদা একটি ঘরে ঘুমাতেন। অন্য ঘরে তার শ্বশুর-শাশুড়ি, দেবরসহ অন্য সদস্যরা থাকতেন। ছেলেকে ঘুমের মধ্যে হত্যার সময় আওয়াজ শুনে ওই কক্ষে গিয়ে শিশুটির মরদেহ এবং তার মাকে রক্তমাখা ধারালো বটিসহ দেখতে পায় ঘরের লোকজন। পরে ওই বাড়ির অন্য সদস্যরা ঘাতক মাকে আটক রেখে পুলিশকে খবর দেয়।

Print Friendly, PDF & Email

     এ ক্যাটাগরীর আরো খবর