,

12

খালেদা জিয়ার জামিন হয়নি, ৩ দিনের মধ্যে নিষ্পত্তির নির্দেশ

হাওর বার্তা ডেস্কঃ কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে একটি নৈশকোচে পেট্রোল বোমা হামলায় আট যাত্রী নিহত হওয়ার ঘটনায় করা বিশেষ ক্ষমতা আইনের মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জামিন হয়নি আজ। তবে বিষয়টি আগামী ২৬ জুলাইয়ের মধ্যে নিম্ন আদালতকে নিষ্পত্তির নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।

আজ সোমবার দুপুরে হাইকোর্টের বিচারপতি এ কে এম আসাদুজ্জামান ও বিচারপতি এস এম মজিবুর রহমানের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আদালতে আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন খন্দকার মাহবুব হোসেন, অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন, ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন। সঙ্গে ছিলেন অ্যাডভোকেট মাসুদ রানা। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। তাকে সহযোগীতা করেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল ড. বশির উল্লাহ।

পরে আইনজীবী জয়নুল আবেদীন সাংবাদিকদের বলেন, কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামের মামলাটিতে এর আগে হাইকোর্ট বিভাগ আদেশ দিয়েছিলেন। সেই আদেশে বিচারিক আদালতকে এ বিষয়ে শুনানি করে নিষ্পত্তি করার নির্দেশ ছিল। আমরা সেই বিচারিক আদালতে জামিনের আবেদন করেছিলাম। বিচারিক আদালত হাইকোর্টের আদেশকে বাইপাস করে জামিন আবেদনটি খারিজও করেন নাই, আবার গ্রহণও করেন নাই। এ আদেশের বিরুদ্ধে বিশেষ আইনের ক্ষমতাবলে আমরা ফের হাইকোর্টে আবেদন করেছিলাম। গত কয়েকদিন শুনানি করে আজ আদেশ দিয়েছেন।

আজকে আদালত ডিকটেশন দিয়ে আদেশ দিয়েছেন। আদালত আদেশে বলেছেন, যেহেতু ওই জামিন আবেদনটি নিষ্পত্তি করা হয়নি। সেজন্য আগামী ২৬ জুলাইয়ের মধ্যে জামিন আবেদনটি নিষ্পত্তির নির্দেশ দিয়েছেন। আর বৃহস্পতিবারের মধ্যে নিষ্পত্তি না করলে আগামী রোববার পরবর্তী আদেশের জন্য আসবে। যোগ করেন এই আইনজীবী।

ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল ড. বশির উল্লাহ বলেন, আগামী বৃহস্পতিবারের মধ্যে নিম্ন আদালতকে আবেদনটি নিষ্পত্তির নির্দেশ দিয়েছেন। রোববার এ বিষয়ে পরবর্তী আদেশের জন্য রেখেছেন হাইকোর্ট।

মামলার বিবরণ থেকে জানা যায়, কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম থানায় বিশেষ ক্ষমতা আইনের দায়ের করা এই মামলায় গত ১ জুলাই খালেদা জিয়ার জামিন চেয়ে কুমিল্লার বিশেষ ট্রাইব্যুনাল-১ এ আবেদন করা হয়। আদালত জামিন না দিয়ে ৮ আগস্ট দিন ঠিক করেন। একই সঙ্গে তাকে এ মামলায় গ্রেফতার দেখানোর আদেশ দেন।

এ আদেশের বিরুদ্ধে গত ১১ জুলাই আপিল দায়ের করেন খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা এবং জামিনের প্রার্থনা করেন। আদালত উভয়পক্ষের শুনানি শেষে সোমবার আদেশের জন্য রাখেন।

Print Friendly, PDF & Email

     এ ক্যাটাগরীর আরো খবর