,

01

শান্তিমতো ঘুমাতে চাইলেন মেসি অবশ্যই বিশ্বকাপ জিততে হবে

হাওর বার্তা ডেস্কঃ ফুটবল ইতিহাসের অন্যতম সেরা খেলোয়াড় হিসেবে বিবেচনা করা হয় তাকে। তার গোল করার ক্ষমতা বিস্ময় ছড়ায় ফুটবলপ্রেমীদের মনে। তবে বিশ্বকাপ জয়ের নায়ক হতে পারেননি তিনি এখনো ৷ ক্লাব ফুটবলে লিওনেল মেসি যতটা সফল দেশের হয়ে ততটা নন ৷ তবে চেষ্টায় কমতি নেই তাঁর ৷ অনেকেরই অভিমত, সর্বকালের সেরা হতে হলে লিওনেল মেসিকে অন্তত একটা বিশ্বকাপ জিততে হবে। সর্বকালের সেরার প্রসঙ্গ বাদ দিন। এবার জানা গেল, ভালোমতো ঘুমাতে চাইলেও মেসিকে বিশ্বকাপ জিততে হবে! দূরের কেউ নন। নতুন এই থিওরিটা বিশ্ববাসীকে দিলেন মেসিরই স্বদেশি হুয়ান মার্টিন দেল পোত্রো।

মেসির মতো মহাতারকা হয়তো নন। তবে দেশ আর্জেন্টিনায় হুয়ান মার্টিন দেল পোত্রোও বড় তারকা। ২০১৬ সালে এই দেল পোত্রোর হাত ধরেই আর্জেন্টিনা ইতিহাসে প্রথম বারের মতো ঘরে তুলে ডেভিস কাপের শিরোপা। ২৯ বছর বয়সী আর্জেন্টাইন এই টেনিস তারকা স্পষ্টই বললেন, শান্তিমতো ঘুমাতে চাইলে মেসিকে অবশ্যই বিশ্বকাপ জিততে হবে!

দেল পোত্রোর এই কথার অর্থ, মেসি এখন শান্তি মতো ঘুমাতে পারেন না। কেন? কারণটা বিশ্ববাসীর কাছে স্পষ্টই। ২০১৪ বিশ্বকাপের পর ২০১৫ ও ২০১৬ কোপা আমেরিকা। ফুটবলের টানা তিনটি বৈশ্বিক টুর্নামেন্টের ফাইনালে হেরেছে লিওনেল মেসির আর্জেন্টিনা।

টানা তিনটি ফাইনালে হার স্বাভাবিকভাবেই আর্জেন্টাইনদের জন্য চরম হতাশার। তবে সবচেয়ে বেশি হতাশ বুঝি হয়েছিলেন মেসিই। বারবার তীরে এসে তরী ডোবায় তিনি এতোটাই মুষড়ে পড়েন যে, ২০১৬ সালে কোপা আমেরিকার শতবর্ষী আসরে হারের পর হতাশায় ভেঙে পড়ে আন্তর্জাতিক ফুটবল থেকে অবসরই নিয়ে ফেলেন মেসি।

তবে দেশবাসীর অনুরোধে হুট করে নেওয়া সেই ‘অবসর’ থেকে মেসি আবার আন্তর্জাতিক ফুটবলে ফিরে এসেছেন বটে। তবে এখনো রাতে ঠিকমতো ঘুমাতে পারেন না। বিছানায় গেলেই মনের কোণের সেই হতাশা-কষ্ট চাঙ্গা হয়ে উঠে।

না, মেসি নিজের এই না ঘুমানোর কথা স্বদেশি দেল পোত্রোকে মুখ খুলে বলেননি। দেল পোত্রো নিজের অভিজ্ঞতার আয়নাতেই দেখতে পান মেসির নির্ঘুম রাত কাটানোর ছবি!

Print Friendly, PDF & Email

     এ ক্যাটাগরীর আরো খবর