,

28

হাওরের পানি নিষ্কাশন ও সঠিক নীতিমালার দাবিতে বিএনপির মানববন্ধন

হাওর বার্তা ডেস্কঃ সুনামগঞ্জের বোরো ফসল রক্ষায় দ্রুততম সময়ে হাওরের পানি নিষ্কাশন ও সঠিক নীতিমালা মেনে হাওরের ফসল রক্ষা বাঁধ নির্মাণে চার দফা দাবি নিয়ে মানববন্ধন করেছে জামালগঞ্জ উপজেলা বিএনপি’র নেতৃবৃন্দ।

জেলা বিএনপির নির্দেশে জামালগঞ্জ উপজেলা বিএনপির বিবাদমান শাহজাহান গ্রুপ ও আজিজ গ্রুপের সমন্বয়ে  আজ মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলা পরিষদের সামনে রাজপথে ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

মানববন্ধনে ছাত্রনেতা এমদাদুল হক হিরণের সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন, উপজেলা বিএনপির সিনিয়র নেতা মো: সিরাজ মিয়া, সাবেক চেয়ারম্যান সিরাজ উদ্দিন, মোহাম্মদ আলী, শাহ্ মো: শাহজাহান মিয়া, আজিজুর রহমান, আ: সত্তার, দেলোয়ার হোসন আর্মি, জুলফিকার চৌধুরী রানা, আবু বরকত, শফিকুর রহমান শফিক, সাবেক মেম্বার নাছির উদ্দিন, নুর মিয়া, জয়নাল আবেদীন, খুরশিদ মিয়া, ইকবাল মিয়া, হাসিন মাহমুদ, ছাত্রনেতা আব্দুল্লাহ আল মামুন, নাদিম মাহমুদ, মোনায়েম হোসেন প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, গত বোরো মওসুমে সুনামগঞ্জের হাওরের ফসর রক্ষাবাঁধ নির্মাণ প্রকল্পে বরাদ্দকৃত অর্থ সরকারি দলের লোকজন সিন্ডিকেট করে আত্মসাৎ ও সীমাহীনভাবে লুটপাট করেছে। এ কারণেই বাঁধ সঠিক সময়ে সঠিকভাবে নির্মাণ না হওয়ায় পাহাড়ি ঢলে কৃষকের একমাত্র বোরো ফসল তলিয়ে যায়। এ কারণে হাওরের লাখো কৃষকরা সারা বছর দুর্দিনে অনাহারে-অর্ধাহারে দিনাতিপাত করেছেন। চলতি বোরো মওসুমে হাওরের ফসল রোপনসহ ফসল রক্ষায় সরকার দায়িত্বপ্রাপ্ত বিভাগের খামখেয়ালীপনার কারণে এখনো হাওরের পানি নিষ্কাশন হয়নি, বাঁধ নির্মাণ প্রকল্প বাস্তবায়ন (পিআইসি) কমিটি গঠনও সম্পন্ন হয়নি। হাওরের কৃষির সাথে যারা ওঁততোপ্রতোভাবে জড়িয়ে আছে আংশিক তাদের নিয়ে বাকি দলীয় নেতা-কর্মী ও অনুগতদের নিয়ে কমিটি গঠন করে বিগত বছরের মতো লুটপাটের সুযোগ করে দেয়া হচ্ছে।

চার দফা দাবির মধ্যে রয়েছে ১. দ্রুত হাওরের পানি নিষ্কাশন করে কৃষকদের জমিকে ধান চাষের উপযোগী করে দিতে হবে। ২. উসল রক্ষা বাঁধ নির্মাণে হালনাগাদ নীতিমাল শতভাগ অনুসরণ করে সংসদ সদস্যদের অনুগত ও সরকারদলীয় লোক বাদ দিয়ে কৃষকদের নিয়ে প্রকল্প কমিটি বাস্তবায়ন করতে হবে। ৩. হাওরের ফসল রক্ষা বাঁধ নির্মাণ সঠিক সময়ে সঠিক নিয়মে করার জন্য সরকারি দায়িত্বপ্রাপ্ত ব্যক্তিদের সচেষ্ট থাকতে হবে এবং ৪. কোনো ব্যক্তি-গোষ্ঠীকে খুশি করতে হাওরের টাকা অন্য খাতে খরচ করা যাবে না।

Print Friendly, PDF & Email

     এ ক্যাটাগরীর আরো খবর