,

08

রাজাকারদের হাতে আর ক্ষমতা দেয়া হবে না

হাওর বার্তা ডেস্কঃ আর কোনোদিন রাজাকারদের হাতে দেশের শাসনক্ষমতা দেয়া হবে না বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য এবং স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম।

সোমবার বিকালে বঙ্গবন্ধু এভিনিউস্থ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে বাংলাদেশ কৃষক লীগ আয়োজিত আলোচনা সভায় নাসিম এই মন্তব্য করেন। ‘কৃষক বাঁচাও-দেশ বাঁচাও’ দিবস উপলক্ষে এই আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

মোহাম্মদ নাসিম বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের উন্নয়ন করছেন। তাই জনগণ আগামী নির্বাচনে উন্নয়নের পক্ষে ভোট দিয়ে আওয়ামী লীগকে বিজয়ী করবে। এই দেশের শাসনক্ষমতা কোনোভাবেই রাজাকারদের হাতে যেতে দেয়া হবে না।’

মন্ত্রী বলেন, ‘বাংলাদেশের মাটিতে নির্বাচন ছাড়া সরকার পরিবর্তনের কোনো বিকল্প পথ নেই। আন্দোলনের হুমকি ধমকি দিয়ে আওয়ামী লীগকে ভয় দেখানো যাবে না। আওয়ামী লীগ জনগণের দল, কোনো হুমকি ধমকিতে ভয় পায় না।’

একাদশ সংসদ নির্বাচন সংবিধান অনুযায়ী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অধীনেই অনুষ্ঠিত হবে জানিয়ে নাসিম বলেন, ‘সংবিধানের বাইরে যাবার কোনো সুযোগ নেই। নির্বাচন হবে বর্তমান সংবিধান অনুযায়ী শেখ হাসিনার অধীনে। নির্বাচন নিয়ে বিভিন্ন চক্রান্ত করতে পারবেন, কিন্তু নির্বাচন বন্ধ করতে পারবেন না।’

মন্ত্রী বলেন, ‘নির্বাচন পরিচালনা করবে নির্বাচন কমিশন, কে নির্বাচনে এলো না এলো তাতে কোনো যায় আসে না। এটা আমাদের দেখার বিষয় না। আওয়ামী লীগ নির্বাচন করবে এবং জনগণের ভোটে বিজয়ী হবে।’

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ বলেন, ‘মিয়ানমার থেকে রোহিঙ্গারা বাংলাদেশে এসেছে আগস্ট মাসে। এ তিন মাস ধরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে সরকারের পক্ষ থেকে রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দেয়া হয়েছে। সবকিছুর পর যখন স্বাভাবিক পরিস্থিতি এসেছে তখন তিনি (খালেদা জিয়া) রোহিঙ্গাদের প্রতি দরদ দেখাতে কক্সবাজার গেছেন। এত যদি দরদ থাকতো তাহলে আগে এলেন না কেন।’

হানিফ বলেন, ‘খালেদা জিয়া দেশে না ফিরে লন্ডনে বসে বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার সাথে বসে ষড়যন্ত্র করেছে। কার সাথে বসে দেশবিরোধী কী ষড়যন্ত্র করেছেন জাতি তা জানতে চায়।’

কৃষক লীগের সভাপতি মোতাহার হোসেন মোল্লার সভাপতিত্বে সভায় আরও বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক, কৃষি ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক ফরিদুন্নাহার লাইলী, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ, কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদক শামসুল হক রেজা প্রমুখ।

Print Friendly, PDF & Email

     এ ক্যাটাগরীর আরো খবর