,

14

ভ্রমণপিপাসুদের অপেক্ষায় সাজেক

হাওর বার্তা ডেস্কঃ একসময় যার পরিচিতি ছিলো দুর্গম পাহাড়ি অঞ্চল হিসেবে। তবে যোগাযোগ, শিক্ষা ও জনস্বাস্থ্য খাতসহ বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মকাণ্ড বাস্তবায়ন হওয়ায় এখন বাঘাইছড়ির সাজেক পাহাড়ি সৌন্দর্যের অহংকার।

কিছুদিন আগেও সাজেকের কাছাকাছি খাগড়াছড়ি ও জেলার শহরের মানুষের কাছেই দুর্গম সাজেক যাওয়া অসম্ভব ছিলো। কিন্তু যাতায়াতের সুবিধা থাকায় এখন দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে ভ্রমণপিপাসু পর্যটক অনায়াসে সাজেকে আসতে পারছেন। সাজেকের সুউচ্চ পাহাড়ে দাঁড়ালে কল্পনায় যে কেউ চলে যাবেন আকাশের কাছাকাছি।

আর নিচের দিকে তাকালে ভাবনা আসতেই পারে কিভাবে উঠলেন এতো উপরে! আকাশ আর পাহাড়ের অপূর্ব মিতালী দেখে হয়তো মনের অজান্তে বলে উঠবেন- আরো আগে আসা উচিত ছিল। সৃষ্টিকর্তার এক অপূর্ব সৃষ্টি সাজেক।

এর মধ্যে শুধু সাজেকে রাস্তার দু’পাশে নির্মাণ করা হয়েছে ফুটপাত। লাগানো হয়েছে সোলার স্ট্রিট লাইট। সাঁঝ ঘনিয়ে আসলেই জ্বলে উঠে সোলার স্ট্রিট লাইটগুলো। পানি সরবরাহের জন্য পোর্টেবল ওয়াটার সাপ্লাইয়ের প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হয়েছে।

দুর্গম সাজেকবাসীর যোগাযোগের জন্য প্রথমবারের মতো বাস সার্ভিস চালু করা হয়েছে।

যেভাবে যাবেন
দেশের যেকোনো স্থান থেকে ঢাকা অথবা চট্টগ্রাম আসবেন। ঢাকার কমলাপুর এবং চট্টগ্রামের অক্সিজেন মোড় থেকে শান্তি, এস আলম, সৌদিয়া, শ্যামলী, ঈগল- এদের যে কোনো পরিবহনে রাতে অথবা দিনে খাগড়াছড়ি আসা যায়। খাগড়াছড়ি থেকে ভাড়ায় চালিত যে কোন গাড়ি করে ১২০-১৫০ মিনিটের মধ্যে পৌঁছানো যাবে সাজেকে।

Print Friendly, PDF & Email

     এ ক্যাটাগরীর আরো খবর