,

1476586727

শেখ হাসিনা আজীবন সভানেত্রী থাকুন

৩৫ বছর ধরে আওয়ামী লীগের সভানেত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আজীবন তিনি এ পদে থাকবেন দলে ঐক্যের প্রতীক হিসেবে। এমনটাই দাবি দলের কেন্দ্রীয় ও তৃণমূল নেতাদের।

শনিবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার রাষ্ট্রীয় বাসভবন গণভবনে আয়োজিত দলের জাতীয় কমিটির বৈঠকে আওয়ামী লীগের সভানেত্রীর পদে না থাকার ইচ্ছা প্রকাশ করে যে বক্তব্য দিয়েছেন, তার বিরোধিতা করেছেন দলটির সব নেতারা। তারা শেখ হাসিনাকে আজীবন দলীয় সভাপতি হিসেবে দেখতে চান বলে জোর দাবি জানিয়েছেন।

বৈঠকে জাতীয় কমিটির সদস্যরা দলীয় সভাপতি শেখ হাসিনার উদ্দেশ্য করে বলেন, আপনি পদ ছাড়তে চাইলেও আপনাকে আমরা ছাড়ব না। বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বাস্তবায়নের আগ পর্যন্ত আপনাকে আওয়ামী লীগের সভাপতির পদে থাকতে হবে।

দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল আলম হানিফ বলেন, ‘ সেই ১৯৮১ সালে দেশে ফিরেই আপনি যে দায়িত্ব নিয়েছেন তা অবিরাম নিষ্ঠার সঙ্গে পালন করে যাচ্ছেন। দলের মধ্যে অনেকেই ভাঙনের চেষ্টা করলেও শুধু আপনার কারণেই তা হয়ে উঠেনি। বাংলাদেশকে মধ্যম আয়ের দেশ হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে আপনার নেতৃত্ব আমাদের সবার প্রয়োজন।’

খুলনা জেলার জাতীয় কমিটির সদস্য চিশতি সোহরাব হোসেন বলেন, ‘নেত্রী (শেখ হাসিনা) আপনি দলের না থাকতে চাইতেই পারেন। আমাদেরও অধিকার আছে আপনাকে ধরে রাখার। আপনার শেখ নিঃশ্বাস ত্যাগ করার আগ পর্যন্ত আওয়ামী লীগ আপনার হাতেই নিরাপদ। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা ও তার আদর্শ বাস্তবায়ন করার মতো আপনার বিকল্প লোক আওয়ামী লীগে এখনও তৈরি হয়নি।’

সিলেট মহানগর জাতীয় কমিটির নেতা মোহাম্মদ সানোয়ার বলেন, ‘আওয়ামী লীগের দুর্দিনে আপনি দলের হাল ধরেছেন। আমি অনুরোধ করব, যতদিন বাংলাদেশে অভাব অনটন থাকবে, দুঃখ-দুর্দশা থাকবে, ততদিন আপনাকে এই দলের নেতৃত্ব দিয়ে যেতে হবে। অন্য কারও হাতে দায়িত্ব ছেড়ে দেওয়ার পর্যায়ে আওয়ামী লীগ এখনও আসেনি। আজীবন আপনাকে এ দায়িত্ব পালন করতে হবে।’

বৈঠকে একে একে জাতীয় কমিটির অন্য নেতারাও একই বক্তব্য রাখেন।

বৈঠক শুরুর আগে প্রধানমন্ত্রী স্বাগত বক্তব্যে বলেন, ‘আমি আওয়ামী লীগের সভানেত্রী হিসেবে ৩৫ বছর ধরে দায়িত্ব পালন করছি। এছাড়া তিন টার্ম সরকারের প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করছি। এই দীর্ঘ ৩৫ বছরে এবারই মাত্র পাঁচদিন ছুটি কাটিয়েছি। আগামী কাউন্সিলে কাউন্সিলরা অন্য কাউকে সভাপতি নির্বাচিত করলে আমিই সবচেয়ে বেশি খুশি হবো।’

সেই ১৯৮১ সাল থেকে দীর্ঘ ৩৫ বছর ধরে আওয়ামী লীগের সভানেত্রীর পদে আছি। টানা ৩৫ বছর ধরে নেতৃত্ব দিলাম। আর কত? এখন নতুন নেতৃত্ব বাছাই করুন। যাদের নেতৃত্বে দেশ ও দল আরো এগিয়ে যাবে।

Print Friendly, PDF & Email

     এ ক্যাটাগরীর আরো খবর