,

5

কিডনি বিনের অসাধারণ পুষ্টিগুণ

হাওর বার্তা ডেস্কঃ কিডনি বিন বা রাজমা ফেজোলাস ওয়ালগারিস উদ্ভিদের সাধারণ শিমের বীজ। শিমের বীজটি কিডনি আকার এবং বর্ণের সাথে সাদৃশ্যপূর্ণ, তাই এটির নাম কিডনি বীন। এটি ফেবাকেই পরিবারের একটি বার্ষিক ভেষজ উদ্ভিদ। গাছটি শক্ত, লম্বা গুল্মে বেড়ে যায় এবং এই গাছে কিডনি আকারের মটরশুটি থাকে।

কিডনি মটরশুটি ৪০০০ বছরেরও বেশি সময় ধরে মানুষের খাদ্যতালিকার অংশ। শিমগুলো উপজাতিদের স্থানান্তরিত করে ছড়িয়ে দেওয়া হয়েছিল এবং মানুষের ডায়েটে প্রোটিন, ফাইবার, আয়রন এবং পটাসিয়ামের উৎস হিসাবে পরিবেশন করা হয়েছিল। কিডনি মটরশুটি বিশ্বের সর্বাধিক গ্রহণযোগ্য খাবার।
কিডনি বিন হিন্দিতে রাজমা, ইংরেজিতে কিডনি বিনস, সিলেট ও পার্বত্য চট্রগ্রামে কাঠুয়া সীম, ঝাড় সীম, ফরাস সীম নামে পরিচিত। রাজমা এক ধরনের সীমের বীচি যা অসাধারণ সব পুষ্টিগুণে ভরপুর।

প্রাচীনকালে ব্যবসা-বাণিজ্যের সময়েই এশিয়ায় রাজমার ব্যবহার চালু হয়। মেক্সিকো এবং মধ্য আমেরিকার কিছু অংশে রাজমা বা কিডনি বিনের ব্যাপক পরিমাণে চাষ হয়। অনেক ধরনেরই বিন পাওয়া যায় – সাদা, ক্রিম, কালো, লাল, বেগুনি, স্পটেড, স্ট্রাইপড এবং মোটলড। রাজমা উদ্ভিজ্জ প্রোটিনের একটি প্রধান উৎস এবং এর স্বাস্থ্যগুণও অসীম। এই বিনে আছে কার্বোহাইড্রেট, প্রোটিন, ভিটামিন ইত্যাদি।

প্রোটিনের আধার

ইউএসডিএ অনুযায়ী, ১০০ গ্রাম কাঁচা কিডনি বিনে রয়েছে প্রায় 24 গ্রাম প্রোটিন। ভাতের সঙ্গে কিডনি বিনে সম্পূর্ণ প্রোটিন খাবার হিসাবেই জনপ্রিয়। সোয়া ও কুইনা ছাড়াই, উদ্ভিজ্জ প্রোটিন উৎস যেমন মটরশুটি, বাদাম ও গোটা শস্য আপনাকে প্রয়োজনীয় প্রোটিন যোগাতে অক্ষম। কিন্তু, অন্য খাবারের সঙ্গে মিশিয়ে খেলে তারা প্রোটিন পদার্থে ভরপুর হয়ে ওঠে।

পুষ্টিবিজ্ঞানীর মতে, রাজমা প্রচুর পরিমাণ প্রোটিন এবং উচ্চ মানের ফাইবারসমৃদ্ধ। যদি একটাই খাবারের বিভিন্ন অ্যামিনো অ্যাসিড চান তবে শস্য ও বাদামের মিশ্রণ খাদ্য হিসেবে উপকারী।

তবে কতখানি খাবেন তার নিয়ন্ত্রণ বজায় রাখা দরকার। কিডনি বিনে প্রচুর পরিমাণে প্রোটিন ফ্যাসিওলিন থাকে যাতে কারো কারো অ্যালার্জিও দেখা যায়।

হজমের সহায়ক কিডনি বিন দ্রবণীয় এবং অদ্রবণীয় ফাইবার সমৃদ্ধ। ফাইবার পাচনতন্ত্র সুস্থ রাখতে সাহায্য করে, অন্ত্রের সমস্যা কমায়। কিন্তু অতিরিক্ত ব্যাবহারে আবার গ্যাস বা পেট ফাঁপার মতো সমস্যাও হতে পারে।

ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য উপকারী

কিডনি বিনের একটি বড় অংশই কার্বোহাইড্রেট। কিন্তু এই কার্বোহাইড্রেট ক্ষতিকারক নয় একেবারেই। এই কার্বোহাইড্রেট হজমে বিলম্ব ঘটায়, যার ফলে রক্তপ্রবাহে শর্করাও নির্গত হয় অল্প পরিমাণে। কিডনি বিন কম গ্লাইসেমিক ইনডেক্স (২9) সম্পন্ন হওয়ায় ডায়াবেটিসের জন্য আদর্শ খাদ্য।

অপরিহার্য খনিজ পদার্থ সমৃদ্ধ

ডি কে পাবলিশিং হাউস কর্তৃক প্রকাশিত ‘হিলিং ফুডস’ বই অনুযায়ী, রক্ত তৈরি করে এমন আয়রন, ফসফরাস রয়েছে কিডনি বিনে। যা হাড় ও দাঁত মজবুত রাখতে সাহায্য করে, এর মধ্যে থাকা ভিটামিন কে স্নায়ুতন্ত্রের রক্ষাও করে।

কোলেস্টেরল কমানো

কিডনি মটরশুটি দ্রবণীয় ফাইবার সমৃদ্ধ। দ্রবণীয় ফাইবার পানি আকর্ষণ করে এবং হজমের সময় জলকে জেলজাতীয় পদার্থে রূপান্তরিত করে। আমরা জানি যে দ্রবণীয় ফাইবার হজম করাতে সাহায্য করে কিন্তু অনেকেই জানি না যে বিন এলডিএল কোলেস্টেরল কমাতেও সাহায্য করে।

ওজন হ্রাস

কিডনি বিন উচ্চমানের প্রোটিন এবং ফাইবারে ঠাসা। পেট ভরা এই খাবার আপনার বারে বারে খাওয়ার প্রবণতা কমায়, ফলে ওজন থাকে নিয়ন্ত্রণে। এছাড়াও এর মধ্যে রয়েছে প্রতিরোধী স্টার্চ। যা ওজন নিয়ন্ত্রণে কার্যকর ভূমিকা পালন করে।

Print Friendly, PDF & Email

     এ ক্যাটাগরীর আরো খবর