,

৪

অবশ হাতে অনুভূতি ফিরে পাচ্ছেন ইউএনও ওয়াহিদা

হাওর বার্তা ডেস্কঃ দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ওয়াহিদা খানম তার প্যারালাইজড হয়ে যাওয়া ডান হাতের আঙুল নাড়াতে শুরু করেছেন। এটা তার শারীরিক অবস্থার অনেক বড় উন্নতি বলে মনে করছেন চিকিৎসকরা। তিনি অনেকখানি ইমপ্রুভ করেছেন বলে জানান ওয়াহিদা খানমের চিকিৎসায় গঠিত মেডিক্যাল বোর্ডের প্রধান অধ্যাপক ডা. জাহেদ হোসেন। বৃহস্পতিবার (১০ আগস্ট) ইউএনও ওয়াহিদা খানমের চিকিৎসা এবং তার উন্নতির বিষয়ে জানতে চাইলে এমনটাই জানান তিনি।

এ ব্যাপারে ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব নিউরো সায়েন্সেস অ্যান্ড হসপিটালের অতিরিক্ত পরিচালক অধ্যাপক বদরুল আলম গণমাধ্যমকে বলেন, ডান হাত এবং ডান পা অবশ হলেও বৃহস্পতিবার ওয়াহিদা তার হাতের আঙ্গুল নড়াচড়া করতে পেরেছেন। এটা খুবই ভালো একটি দিক। তবে পুরোপুরি সুস্থ হতে বেশ সময় লাগবে। এখন ফিজিওথেরাপি চলছে।

তিনি আরও বলেন, অস্ত্রোপচারের পর জ্ঞান ফিরলে ওয়াহিদার স্মৃতিশক্তি স্বাভাবিক হতে থাকে। তিনি তার স্বামীকে চিনতে পেরেছেন। কথা বলছিলেন ধীরে ধীরে। হালকা খাবারও খাচ্ছেন।

প্রসঙ্গত, গত ২ সেপ্টেম্বর দিনগত রাত আড়াইটার দিকে উপজেলা পরিষদ চত্বরে ইউএনও’র সরকারি বাসভবনে ঢুকে হামলা করে দুর্বৃত্তরা। প্রথমে গেটে দারোয়ানকে বেঁধে ফেলে তারা। পরে বাসার পেছনে গিয়ে মই দিয়ে উঠে ভেনটিলেটর ভেঙে বাসায় প্রবেশ করে হামলাকারীরা। ভেতরে ঢুকে ভারী ও ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে এবং আঘাত করে ইউএনও ওয়াহিদাকে গুরুতর আহত করে তারা। এ সময় মেয়েকে বাঁচাতে এলে বাবা মুক্তিযোদ্ধা ওমর আলী শেখকে (৭০) জখম করে দুর্বৃত্তরা। পরে তারা অচেতন হয়ে পড়লে মৃত ভেবে হামলাকারীরা পালিয়ে যায়। ভোরে স্থানীয়রা টের পেয়ে তাদের উদ্ধার করেন। ওয়াহিদাকে প্রথমে রংপুরে ও পরে রংপুর থেকে এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে তাকে ঢাকায় আনা হয়। বর্তমান তিনি ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব নিউরোসায়েন্স হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

Print Friendly, PDF & Email

     এ ক্যাটাগরীর আরো খবর