,

2

গ্রিজমানের বদলে নেইমার

হাওর বার্তা ডেস্কঃ গেল গ্রীষ্মকালীন দলবদলে নেইমারকে ফেরানোর জন্যে এক দারুণ চেষ্টাই চালিয়েছে বার্সেলোনা। তবে সে চেষ্টা ব্যর্থ হলেও আসছে গ্রীষ্মে কাতালানরা এক্ষেত্রে সফলতা চায়। নেইমারকে দলে ভেড়াতে এক অভিনব কৌশল বাস্তবায়ন করতে চায় তারা, জানিয়েছে ইএসপিএন।

এদিকে তাকে দলে ভেড়ানোর অর্থ যোগাড়ে আন্তনিও গ্রিজমানকে ছেড়ে দিতে আগ্রহী দলটি। গ্রিজমানকে পেতে ইচ্ছুক দলগুলোয় আবার সবার চেয়ে এগিয়ে পিএসজি।

ইএসপিএন জানাচ্ছে, নেইমারকে ফেরাতে ২০০১ সালের এক দলবদল নিয়মের আশ্রয় নিচ্ছে বার্সা। ফিফা দলবদল নিয়মের ১৭ নম্বর অনুচ্ছেদে বলা আছে, চুক্তির পর থেকে তিন বছর সময় থাকে ‘প্রোটেকশন পিরিয়ড’। এটা শেষ হওয়ার পর কোনো কারণ ছাড়াই দল ছাড়তে পারবেন যে কোনো খেলোয়াড়। ২০০১ সালে এক ইউরোপিয়ান কমিশনের সঙ্গে ফুটবলারদের স্বাধীন ক্লাববদল নিয়ে সৃষ্ট এক বিবাদ নিরসনে এই নিয়ম প্রবর্তন করে ফিফা।

নেইমার পিএসজিতে আছেন তিন মৌসুম ধরে। ২০১৭ সালে করা চুক্তিটির ‘প্রোটেকশন পিরিয়ড’ শেষ হবে আগামী গ্রীষ্মে। আর তখনই নিয়মটাকে বাজিয়ে দেখতে আগ্রহী বার্সেলোনা।

তবে বার্সেলোনার সামনে এবার বড়ো চ্যালেঞ্জটা ছুড়বে অর্থ। আর্থিক সংকটের কারণে ব্রাজিলীয় তারকাকে গেলো দলবদলেই বেশ কিছু অদল-বদল প্রস্তাবের মাধ্যমে ক্লাবে ভেড়াতে চেয়েছিলো বার্সেলোনা। এবার করোনা ভাইরাসের কারণে অবস্থাটা কেবল ঘোলাটেই হয়েছে।

ফলে নেইমারকে ফেরাতে আরেক ফরোয়ার্ড গ্রিজমানকে এক মৌসুম পরই ছেড়ে দিতে আগ্রহ প্রকাশ করেছে বার্সা। স্প্যানিশ ক্রীড়া দৈনিক স্পোর্ত জানাচ্ছে, ১০০ মিলিয়ন ইউরো সমপরিমাণের একটা প্রস্তাব পেলেই ফরাসি ফরোয়ার্ডকে ছেড়ে দেবে কাতালান দলটি।

গেলো গ্রীষ্মে দলে আসার পর থেকে ১৪ গোল করেছেন গ্রিজমান। সতীর্থদের দিয়ে করিয়েছেন আরো চারটি। তবে এরপরও ক্লাবটির নীতিনির্ধারকদের সুনজরে আসতে ব্যর্থ হয়েছেন বিশ্বকাপজয়ী এই ফরোয়ার্ড, জানাচ্ছে স্পোর্ত।

১০০ মিলিয়ন ইউরো পেলেই খেলোয়াড়টিকে ছেড়ে দিতে চায় বার্সা, আর তাকে দলে পেতে আগ্রহ প্রকাশ করেছে পিএসজি, ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড, চেলসি, আর্সেনালের মতো দলগুলো। তবে পিএসজি চাইলে নেইমারের সঙ্গে অদল-বদল চুক্তির বিকল্পও আছে কাতালানদের সামনে।

গেলো গ্রীষ্মে উসমান দেম্বেলে গ্রিজমানের অবস্থানে থাকলেও চলতি মৌসুমে কিছুটা তার ব্যাপারে নমনীয় বার্সা। স্পোর্ত জানাচ্ছে, ফরাসি এই ফরোয়ার্ডকে শেষবারের মতো সুযোগ দিতে চায় কাতালানরা।

Print Friendly, PDF & Email

     এ ক্যাটাগরীর আরো খবর