,

18

শিক্ষকেরা ফাঁকিবাজি করলে শিক্ষার্থীরাও ফাঁকিবাজ হবে

হাওর বার্তা ডেস্কঃ শিক্ষকেরা হচ্ছেন সমাজের রোল মডেল। কারণ, মানুষ যেকোনো সমস্যায় পড়লে আগে শিক্ষকদের কাছে গিয়ে সমাধানের চেষ্টা করেন। তবে যেসব শিক্ষক সমাজের রোল মডেল হতে পারেন না, তাঁদের শিক্ষকতার কোনো মূল্য নেই। শিক্ষকেরা ফাঁকিবাজি করলে শিক্ষার্থীরাও ফাঁকিবাজ হবে।
গতকাল শনিবার দুপুরে ইটনা উপজেলার রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ মিলনায়তনে বাংলাদেশ প্রাথমিক শিক্ষক সমিতি ইটনা উপজেলা শাখার আয়োজনে এক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন কিশোরগঞ্জ-৪ আসনের সাংসদ রেজওয়ান আহাম্মদ তৌফিক।

ইটনায় দ্বিতীয় মেয়াদে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ায় চৌধুরী কামরুল হাসানকে এ সংবর্ধনা দেওয়া হয়।

সাংসদ রেজওয়ান আহাম্মদ শিক্ষকদের ফাঁকিবাজি থেকে দূরে থাকার আহ্বান জানিয়ে বলেন, শিক্ষকদের কাছ থেকে কোনো শিক্ষার্থী যেন ফাঁকিবাজি না শেখে। তাই তিনি শিক্ষকদের ফাঁকিবাজি থেকে দূরে থাকার আহ্বান জানান। উদাহরণ টেনে তিনি বলেন, তিনি এক বর্ষায় দুপুর ১২টার দিকে অষ্টগ্রাম উপজেলার একটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে গিয়ে বিদ্যালয় তালাবদ্ধ দেখতে পান। দুপুর ১২টায় বিদ্যালয় তালাবদ্ধ দেখে গ্রামের লোকজনকে জিজ্ঞেস করার সঙ্গে সঙ্গে একজন জানান, ১০ মিনিট হলো শিক্ষকেরা চলে গেছেন। পরে জানতে পারেন, সেদিন বিদ্যালয়ে কোনো শিক্ষকই আসেননি।

সাংসদ বলেন, সরকার এখন প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকসহ সব শিক্ষকের বেতন-ভাতা বৃদ্ধিসহ অনেক সুযোগ-সুবিধা দিচ্ছে। এর পরও শিক্ষকদের এ রকম ফাঁকিবাজি দুঃখজনক। তাই তিনি প্রাথমিক শিক্ষকদের পাঠদানের প্রতি আরও মনোযোগ দেওয়াসহ সব শিক্ষককে তাঁদের নিজ নিজ দায়িত্ব সম্পর্কে সচেতন থাকার আহ্বান জানান।

ইটনা উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মো. আকিকুর রেজা খানের সভাপতিত্বে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. ইসমাইল হোসেন, উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি মো. খায়রুল ইসলাম প্রমুখ।

Print Friendly, PDF & Email

     এ ক্যাটাগরীর আরো খবর