,

11

অমিত শাহের সামনে দাঁড়িয়ে প্রতিবাদ, গভীর রাতে নারী আইনজীবীকে বাড়িছাড়া করলো পুলিশ

হাওর বার্তা ডেস্কঃ  ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের সামনে দাঁড়িয়ে বিতর্কিত ও ধর্মভিত্তিক নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদ জানিয়ে বাড়িছাড়া হতে হলো এক নারী আইনজীবীকে।

ওই আইনজীবীর নাম সূর্যা রাজপ্পন। তিনি দিল্লি হাইকোর্টের আইনজীবী।

আনন্দবাজার পত্রিকার এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সূর্যার দিল্লিতেই জন্ম, বড় হওয়া ও পড়াশোনা। আইন নিয়ে পড়ে এখন দিল্লি হাইকোর্টেরই আইনজীবী। কিন্তু ২৭ বছরের সূর্যার জীবনটাই এক নিমেষে পাল্টে গেল।

খবরে বলা হয়, গত রোববার লাজপত নগরে সূর্যাদের গ্রামে গিয়ে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের পক্ষে সমর্থন জোগাড় করছিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ।

অবশ্য একদিন আগেই তার আসার খবর পেয়েছিলেন সূর্যা। তাই অমিতের সামনে প্রতিবাদ করার চিন্তা করেন তিনি। বিষয়টি বাবাকেও জানান। জানান কিছু আইনজীবী বন্ধুকেও।

বিছানার চাদরেই তড়িঘড়ি লিখে ফেলেন, ‘শেম’, ‘নো সিএএ, নো এনআরসি’, ‘জয় হিন্দ’, ‘নট ইন মাই নেম’, ‘আজাদি’।

সেই ব্যানার বারান্দা থেকে ঝুলিয়ে স্লোগানও দেন সূর্যা। অমিত না-তাকিয়ে এগিয়ে যান। কিন্তু স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর পেছনে থাকা বিজেপির কর্মীরা হুলস্থুল বাধান।

তাদের সঙ্গ দেন বাড়িওয়ালা। ব্যানার ছিনিয়ে নেয়া হয়। বাড়িতে ঢোকার একমাত্র সিঁড়ি আটকে দেয়া হয়।

সূর্যা বলেন, ‘এমন হবে সত্যিই ভাবিনি। বিজেপি কর্মীদের সঙ্গে বাড়িওয়ালাও বলতে শুরু করলেন, বাড়ি থেকে বেরিয়ে যান। বাবা-বন্ধু-সহকর্মীরা এলেন। কিন্তু ৩-৪ ঘণ্টা ধরে নীচের ভিড় তাদেরও ওপরে উঠতে দেয়নি। অবশেষে পুলিশ ডাকতে হল। বাড়ি ছেড়ে যাওয়া ছাড়া উপায় ছিল না।’

মাঝরাতে পুলিশি নিরাপত্তায় ভাড়াবাড়ি ছেড়ে বেরিয়ে আসতে হয় সূর্যাকে। এখনও এফআইআর করেননি। জানা গেছে, আত্মগোপন করে আছেন দক্ষিণ দিল্লির এক ডেরায়।

ফোনে তিনি বলেছেন: ‘বাবার আশঙ্কা ছিলই, বাড়ি থেকে তাড়ানো হতে পারে। তবু সাহস জুগিয়ে গেছে। জানতাম, অমিত শাহ, সর্বশক্তিমানের সামনে প্রতিবাদ করছি। না-করলেও আক্ষেপ হত।’

Print Friendly, PDF & Email

     এ ক্যাটাগরীর আরো খবর