,

a4

কর্তারা নিষ্ক্রিয় ফুটবলাররা নিষ্প্রভ

হাওর বার্তা ডেস্কঃ ফুটবলের উন্নতির জন্য বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) চেয়ারে বসলেও নিষ্ক্রিয় কর্তারা। আর আসন্ন প্রিমিয়ার লিগে লাখ লাখ টাকায় খেলার প্রত্যাশায় ফুটবলাররা নিষ্প্রভ এসএ গেমসে। ফিফা র‌্যাংকিংয়ে পিছিয়ে পড়ছে বাংলাদেশের ফুটবল। ২ ডিসেম্বর ভুটানের বিপক্ষে ম্যাচের ৬৫ মিনিটে দ্রুতগতিতে বল নিয়ে এগিয়ে যাওয়া চেনচো গেইলশেনকে আটকানোর কোনো চেষ্টাই করেননি বিশ্বনাথ ঘোষ। অনায়াসে গোল করেন ভুটান অধিনায়ক। ওই গোলেই হারে বাংলাদেশ।

কাঠমান্ডুর দশরথ স্টেডিয়ামে মঙ্গলবার মালদ্বীপ যে সমতাসূচক গোলটি করেছিল, তাতে লাইনে থেকেও বল ধরতে পারেননি গোলকিপার আনিসুর রহমান জিকো। এসএ গেমস ফুটবলে বাংলাদেশের দুটি গোল হজম করার দৃশ্য দেখে অনেকেই প্রশ্ন তুলেছেন ফুটবলারদের দায়িত্ববোধ নিয়ে। গত এক বছরে ফুটবলে যে বাংলাদেশকে দেখা গেছে, সেই একই দল এসএ গেমসে অন্য চেহারায়।

কাতার বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে দুর্দান্ত খেলা দলটি এখন অনেকটাই নিষ্প্রভ। প্রাণপণ লড়াই করার চেয়ে গা বাঁচিয়ে খেলছেন ফুটবলাররা। খেলা দেখলেই তা স্পষ্ট। আর এর পেছনে বড় কারণ, সামনে ঘরোয়া ফুটবলের মৌসুম। ক্লাব থেকে কোটি কোটি টাকা নেয়া ফুটবলাররা ইনজুরিতে পড়ার ঝুঁকি নিতে চান না বলেই হয়তো পা বাঁচিয়ে খেলছেন। বাফুফের দায়িত্বশীল এক কর্মকর্তা একথা স্বীকার করেছেন।

ক্লাব আগে না দেশ। আগেও এমন প্রশ্নের মুখোমুখি হয়েছিলেন ফুটবলাররা। এবারও একই প্রশ্ন উঠছে এসএ গেমসে বাজে পারফরম্যান্স করার কারণে। গত ১৫ অক্টোবর বিশ্বকাপ বাছাইয়ে কলকাতা যুবভারতী ক্রীড়াঙ্গনে ভারতকে ১-১ গোলে রুখে দিয়ে ফুটবলে সুবাতাস ফেরানোর ইঙ্গিত দিয়েছিলেন জামাল ভূঁইয়ারা। প্রায় একই দল নিয়ে দক্ষিণ এশিয়ার সর্ববৃহৎ ক্রীড়া আসরে খেলতে যাওয়া সেই বাংলাদেশকে যেন চেনাই যাচ্ছে না।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সাবেক এক ফুটবলার বলেন, ‘কোনো খেলোয়াড় স্বীকার না করলেও অনেকেরই ধারণা, ক্লাবের স্বার্থকে বড় করে দেখছেন ফুটবলাররা। ১৮ ডিসেম্বর ফেডারেশন কাপ দিয়ে শুরু হবে ঘরোয়া ফুটবলের নতুন মৌসুম। এটা মাথায় আছে খেলোয়াড়সহ ক্লাব কর্মকর্তাদের। এক মৌসুমের জন্য প্রতিটি ক্লাব কোটি কোটি টাকা ব্যয় করে। খেলোয়াড়দের আয়ের বড় উৎস হল লিগ

ফুটবল। লিগের আগে ইনজুরিতে পড়লে পুরো মৌসুমটাই নষ্ট হতে পারে, এমন অনেক কিছুই ঘুরপাক খাচ্ছে ফুটবলারদের মাথায়। আবার ফুটবলারদের গা বাঁচিয়ে খেলতে বলেছেন ক্লাব কর্তারা, এটাও মনে করছেন ফুটবলপ্রেমীরা। যা দেশপ্রেমের পরিচয় বহন করে না।

Print Friendly, PDF & Email

     এ ক্যাটাগরীর আরো খবর