,

১৫

জবিতে ছাত্রদলকে ছাত্রলীগের ধাওয়া, মারধর

হাওর বার্তা ডেস্কঃ  জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে (জবি) ছাত্রদলের নেতাকর্মীদের ধাওয়া দিয়ে মারধর করেছে শাখা ছাত্রলীগের কর্মীরা। এতে অন্তত: ৪ জন আহত হয়েছেন। আজ বৃহস্পতিবার সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল ফটকের সামনে এ হামলার ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, খালেদা জিয়ার মুক্তি ও ক্যাম্পাসে সহাবস্থানের দাবিতে স্লোগান দিয়ে সকাল সাড়ে ৯টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের কলা ভবনের সামনে থেকে একটি মিছিল বের করে ছাত্রদল। মিছিলটি শান্ত চত্বরের কাছে পৌঁছলে পেছন থেকে ধাওয়া করে জবি শাখা ছাত্রলীগের কর্মীরা। এ সময় পেছন থেকে ছাত্রদলের ওপর ইট-পাটকেল ছুঁড়ে ছাত্রলীগের কর্মীরা। পরে মূল ফটকের সামনে ছাত্রদলের কয়েকজন পড়ে যান। তখন আবদুর রশীদ (অর্থনীতি, ৩য় ব্যাচ) নামে এক ছাত্রদল নেতাকে বেধড়ক মারধর করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টর অফিসে দেয়। পরবর্তীতে প্রক্টর অফিস থেকে তাকে পুলিশের লরিতে মিটফোর্ড হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য পাঠানো হয় বলে জানিয়েছেন প্রক্টর ড. মোস্তফা কামাল।

এছাড়াও জিতু, পলাশ, রুবেলসহ অনেকে আহত হয়।

ঘটনার পর জবি ছাত্রদলের সাংগঠনিক সম্পাদক সাদিকুর রহমান সাদিক বলেন, ক্যাম্পাসে সহাবস্থানের দাবিতে আমরা শান্তিপূর্ণ মিছিল শুরু করি। হঠাৎ পেছন থেকে শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা আমাদের ওপর হামলা চালায়। এতে আমাদের বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন।  এ হামলার তীব্র প্রতিবাদ জানাই, একইসঙ্গে ঘটনায় জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করি।

এ বিষয়ে জবি ছাত্রদল সভাপতি রফিকুল ইসলাম তীব্র নিন্দা জানিয়ে বলেন, আমরা এই হামলার সুষ্ঠু বিচার দাবি করছি এবং দুই দিনের মধ্যে খালেদা জিয়ার নামফলক পুনঃস্থাপন করার দাবি জানাচ্ছি। আজ থেকে আমরা ক্যাম্পাসে নিয়মিত অবস্থান করবো।

এ বিষয়ে প্রক্টর ড. মোস্তফা কামাল বলেন, আজ সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রদলের ওপর হামলার ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় আহত একজনকে প্রক্টর অফিসে আনা হয়। আমরা তাকে চিকিৎসার জন্য মিটফোর্ড হাসপাতালে পাঠিয়ে দিয়েছি। বিচার হবে কিনা জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি বলেন, কেউ লিখিত অভিযোগ দিলে আমরা ব্যবস্থা  নেবো।

এদিকে হামলার কিছুক্ষণ পরই শাখা ছাত্রলীগের কর্মীরা ক্যাম্পাসে মিছিল করে। এ ঘটনায় ক্যাম্পাসে উভয়পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে।

Print Friendly, PDF & Email

     এ ক্যাটাগরীর আরো খবর